Shadow

আগামীকাল সকাল থেকে ২১ দিনের লকডাউনে ওয়ারী

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডেস্ক রিপোর্ট, ঢাকা; রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ওয়ারী এলাকাকে শনিবার (৪ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে ২১ দিনের জন্য লকডাউন করা হবে। সরকারি এমন নির্দেশনা বাস্তবায়নে পুরো প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বাস্তবায়নকারী একাধিক সংস্থা।

পুলিশ জানায়, লকডাউন বাস্তবায়নে নির্ধারিত এলাকা থেকে সব ধরনের প্রবেশ বন্ধ থাকবে এবং বাইরে বের হওয়ার জন্য খোলা থাকবে রাংকিন স্ট্রিট টিপু সুলতান ক্রসিং এবং হট কেকের মোড়। জনসাধারণের চলাচল নিয়ন্ত্রণসহ সার্বিক পরিস্থিতি নজরদারিতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ওয়ারী এলাকার মোট ১৭টি প্রবেশ পথের মধ্যে ১৫টিতে বাঁশের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। লকডাউনের বিষয় নিয়ে এলাকায় মাইকিং করা হচ্ছে।

লকডাউন প্রসঙ্গে ৪১ নং ওয়ার্ড কমিশনার সারোয়ার হোসেন আলো বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘ওয়ারীকে লকডাউনের জন্য প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন।’

তিনি আরও জানান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি লকডাউন হওয়া এলাকায় দুইশ জন স্বেচ্ছাসেবক কাজ করবেন। তিনটি রোড ও পাঁচটি গলি এই লকডাউনের অধীনে থাকবে।

রোডগুলো হলো- টিপু সুলতান রোড, যোগীনগর রোড ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক (জয়কালী মন্দির থেকে বলধা গার্ডেন)। গলিগুলোর মধ্যে রয়েছে লারমিনি স্ট্রীট, হেয়ার স্ট্রীট, ওয়্যার স্ট্রীট, র্যাংকিং স্ট্রীট ও নবাব স্ট্রীট।

সারোয়ার হোসেন আরও জানান, করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহের বুথ হিসেবে খোলা হয়েছে ওয়ারী বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে। লকডাউন চলাকালীন সময় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হতে পারবে না কেউ। জরুরি প্রয়োজনে স্বাস্থবিধি মেনে রাংকিন স্ট্রিট উত্তরা ব্যাংকের রাস্তার মুখ এবং ওয়্যার স্ট্রীট হট কেকের মুখ দিয়ে যাতায়াত করতে পারবেন। আসা করি এলাকাবাসী সরকারি নির্দেশনা মেনে চলবেন।

এদিকে লকডাউন চলা অবস্থায় আইন অমান্য করলে কঠোর ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ প্রসঙ্গে উপ-পুলিশ কমিশনার (ওয়ারী বিভাগ) শাহ ইফতেখার আহমেদ বাংলাদেশ জার্নালকে জানান, ওয়ারী থানা ও ফাঁড়িসহ দুই সিফটে ৮০ জন্য পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করবে।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (০৩ জুলাই ২০২০) তথ্য অনুযায়ী,  গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪২ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। ফলে ভাইরাসটিতে মোট ১৯৬৮  জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ১১৪  জন। এতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৫৬ হাজার ৩৯১  । আজ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৪  হাজার ৬৫০  টি যা গতদিনে ছিল ১৮  হাজার ৩৬২ টি । ৬৩টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৪ হাজার ৬৫০টি। শনাক্তের হার ২১.২৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৬০৬ জন এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৬৮ হাজার ৪৮ জন। সুস্থতার হার ৪৩.৫১% এবং মৃত্যুর হার ১.২৬ শতাংশ। বয়স বিশ্লেষণে জানা যায়, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে একজন, ২১-৩০ তিনজন, ৩১-৪০ একজন, ৪১-৫০ পাঁচজন, ৫১-৬০ ১১ জন, ৬১-৭০ ১১ জন, ৭১-৮০ সাতজন, এবং ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে তিনজন। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানানো হয়, পুরুষ ৩২ জন ও নারী ১০ জন। এদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ১৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১০ জন, রাজশাহী তিনজন, খুলনা বিভাগে তিনজন, রংপুর বিভাগে চারজন, বরিশাল বিভাগে একজন ও সিলেট বিভাগে তিনজন। হাসপাতালে মারা গেছেন ৩১ জন এবং বাড়িতে ১১ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ৮৭৭ জনকে। আইসোলেশন থেকে ছাড় দেয়া হয়েছে ৬৮৭ জনকে।

  রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধ নয়, পাট খাতে লুটপাট বন্ধ করুন: শ্রমিক ফ্রন্ট

আমাদের বাণী ডট কম/০৩  জুলাই  ২০২০/পিপিএম

সৈয়দপুরের বিজ্ঞাপন

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •