ভাষা শহীদদের অমূল্য রক্তের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি প্রাণের বাংলা ভাষা। কিন্তু এ ভাষার যথাযথ মর্যাদা কি আমরা দিচ্ছি? বিদেশি ভাষার আগ্রাসনে বাংলা ভাষা আজ ক্ষতবিক্ষত। এর প্রমাণ পাওয়া যায় এদেশের টিভি-চ্যানেল কিংবা রেডিওগুলো চালু করলে। আবার কথায় কথায় ইংরেজি কিংবা হিন্দি না বললে আমাদের পেটের ভাত হজম হয় না। কিন্তু বাংলা ভাষার প্রতি এমন আচরণ সহ্য হয়নি মোখলেছুর রহমান সাগর নামের এ বাংলাভাষা প্রেমীর। তিনি গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে এসবের বিরুদ্ধে মৌন প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন।

আজ বুধবার বিকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে গিয়ে দেখা যায়, ‘সর্বত্র বাংলার ব্যবহার চাই, উচ্চ ও নিম্ন আদালতের রায় বাংলায় কেন নয়?’, ‘পূর্ণাঙ্গ শহীদ মিনার সারা বছর দেখতে চাই’, ‘এফএম রেডিও টেলিভিশনে বাংলা ভাষার মিশ্র ও বিকৃতপূর্ণ ব্যবহার বন্ধ কর’ প্রভৃতি লেখা সংবলিত তিনটি প্ল্যাকার্ড ও মাথায় জাতীয় পতাকা নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন মোখলেছুর। তিনি তেজগাঁও কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্স ফাইনালের পড়ছেন। ২০১৩ সাল থেকে এককভাবে দেশের বিভিন্ন সমস্যা এবং সমাজের বিভিন্ন অসঙ্গতি নিয়ে প্রতিবাদ ও সামাজিক সচেতনতামূলক কাজ করে আসছেন বলে জানান মোখলেছুর। দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে তিনি বলেন, রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এ ভাষাকে আমরা প্রতিনিয়ত বিকৃত করে যাচ্ছি যা মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়।

  রাজধানীর হাতিরঝিল থেকে ‘কিশোর গ্যাং’-এর শতাধিক সদস্য আটক

মোখলেছুর আরও বলেন, আমরা আমাদের সন্তানদের বাংলার মাধ্যমে না পড়িয়ে ইংলিশ মিডিয়ামে পড়াচ্ছি। ফলে নতুন প্রজন্ম ঠিকমত বাংলা বলতে জানে না। তিনি প্রশ্ন রাখেন, স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশের উচ্চ আদালতে রায় কেন ইংরেজিতে দেওয়া হবে?

এছাড়াও তিনি অভিযোগ করেন, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের মাঝখানের লাল বৃত্তটা একুশে ফেব্রুয়ারির পরে সরিয়ে ফেলা হয় যা শহীদ মিনার বিকৃতির সামিল। সারাবছরই এ লাল বৃত্তটা যেন সেখানে লাগানো থাকে এ দাবি জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *