আইনুল হোসেন সানু

একটু’ বাঁচার আশে আইনুল হোসেন সানু পরিচয়ের সেই শুরু হতে শেষ অবধি দেখানো তোর ছিল যত স্বপ্ন গুলো মিথ্যে সবই জানি, তবে ছিলো সে’ সবই অতি সত্যি’ মানি জানিস কি’ তুই ওরা আজও হাত ছানি দেয় ডাকে আমায় যেন সারাক্ষণই ? বলে অস্পৃশ্য স্বরে থেকে থেকেই কানের কাছে’ আয় না’ কাছে আয় ফিরে একটি বার ফিরি যেই পিছন ফিরে হারায় যেন’ সব কোন সে’ দূরে হঠাৎ করে দিশা না’ পাই ……গোধূলী’ র পর ধীরেঅ তি ধীরে নামে সন্ধ্যা যখনম লিন হলে দিনের সকল আলো একে একে মুছে যাওয়া ঐ’

পথচারির শত কোলাহল পথটি জুড়ে হতাশ ক্লান্ত পথিক খুঁজে মরে চেনা তার পথটি যখন গহীন অন্ধকারে…?উদাস দেখি তখন চেয়ে আমি দু’ চোখ’ ভরে পথের বাঁকে ঐ’ যে’ ঝোপের ধারে মিটিমিটি আলো হাতে জোনাকিরা সব রাস্তায় নামে ঝাঁক টি বেঁধে, দূর করে দেয় অন্ধকার একটু হলেও আর পথিক তখন কৃতজ্ঞতায় ইসত হেসে ফেরে আপন নীড়ে …. এমনি করে কাটে সময় আজও আমার যত এ’ সব দেখে কিম্বা বলতে পারিস তোকে ভেবে ই কখনও বা’ গভীর নির্ঘুম রাত শুধুই একা জেগে ….. সত্যি’ কি’ তুই বলতে পারিস ওরে ভুলে নাকি’ দেখিয়েছিলি আমায় যত স্বপ্ন গুলো তোর ছিলো সত্যি’ সবই তবে ইচ্ছে করেই ফেলে যাওয়া আমার তরে ?

  কবিতায় 'তুমি যে বঙ্গবন্ধু'

মানিস কি’ তুই নিরব ওরা কাঁদে বসে আজও’ নিঃশব্দে অযথা পড়ে পড়ে আমার শিওরে…. শুনে ওদের কান্নার করুন সে’ শব্দে হঠাৎ মাঝ রাতে তে ঘুম ভাঙে দেখি জেগে, শুস্ক দু’ টি চোখে’ শত অশ্রুর দাগ জীবন্ত স্বাক্ষী হয়ে আছে লেগে …. তখন জানিস কি’ তুই’ ভীষণ কি’ যে’ একা লাগে ? মনের অজান্তেই কেবলই তখন মিথ্যে স্বপ্নে বিভোর হয়ে মন নতুন করে ফের তোকে’ই শুধু খোঁজে …. সাজহীন নিরব আজ এই দু’ টি চোখে’

শুধুই শুস্ক মরুর খাঁজে রাত্রি জাগা যত গভীর কালির দাগ দেখবি যদি আয়না তবে ফিরে …… নেই যদিও আঁকা আজ কাজল কালো রেখা একটুও আর আগের মত আর আমার দু’ চোখ’ জুড়ে, সে’ সব গেছে কবেই ধুয়ে মুছে, পড়ে না’ আজ মনেও ঠিক করে ….

তবুও যখন ইচ্ছে করে হঠাৎ মনের ভুলে দাঁড়ায় গিয়ে একা নির্জনের ঐ’ আয়নার সামনে তে একটি বারের তরে দেখতে নিজের মুখ একটু নিবিড় করে ….. সেই’ দু’ চোখে যখন পড়ে আমার এ’ দু’ টি চোখ’ লজ্জাতে হয় নতো, তখন যেন’ সে’ বিভোর হয়ে খোঁজে কোন সে’ ভুলে অস্ত যাওয়া মনের যত সুখ ….

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *