বাংলাদেশ সরকার

সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ ভাতা বাড়ানো হয়েছে। এখন থেকে বিষয়ভিত্তিক অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণে যুগ্মসচিব ও তদূর্ধ্ব পর্যায়ের কর্মচারীরা এক ঘণ্টা ক্লাস নিলে ভাতা পাবেন ২ হাজার ৫০০ টাকা। উপসচিব এবং তার নিম্ন পর্যায়ের কর্মচারীরা ভাতা পাবেন ২ হাজার টাকা। এ ছাড়া প্রশিক্ষণার্থী ও এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার ভাতা ও সম্মানী বাড়িয়ে তা পুননির্ধারণ করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রণালয়। অর্থ বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. গোলাম মোস্তফা ২২ মে স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনটি বৃহস্পতিবার জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়, মন্ত্রণালয় বা বিভাগ এবং অধীনস্থ অধিদফতর, পরিদফতর ও দফতর কর্তৃক আয়োজিত বিষয়ভিক্তিক অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণ পরিচালনার জন্য বক্তা সম্মানী, প্রশিক্ষণ ভাতা এবং অন্যান্য ব্যয় হার পুননির্ধারণ করা হলো।

এতদিন যুগ্মসচিব ও তদূর্ধ্ব পর্যায়ের কর্মচারীর প্রশিক্ষণ সম্মানী পেতেন ১ হাজার ২০০ টাকা। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতি ঘণ্টার সেশনে তারা পাবেন ২ হাজার ৫০০ টাকা। উপসচিব এবং তার নিম্ন পর্যায়ের কর্মচারীরা পেতেন ১ হাজার টাকা। এখন থেকে প্রতি ঘণ্টার সেশনে তারা পাবেন ২ হাজার টাকা।

এছাড়া প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ ভাতাও বাড়ানো হয়েছে। এতদিন জাতীয় বেতন স্কেল, ২০১৫ অনুসারে গ্রেড-৯ থেকে তদূর্ধ্ব পর্যায়ের কর্মচারীরা প্রতিদিন প্রশিক্ষণ ভাতা পেতেন ৫০০ টাকা। নতুনভাবে এটিকে বাড়িয়ে ৬০০ টাকা করা হয়েছে। গ্রেড-১০ থেকে তার নিম্ন পর্যায়ের কর্মচারীর প্রতিদিন প্রশিক্ষণ ভাতা পেতেন ৪০০ টাকা। এটিকে বাড়িয়ে ৫০০ টাকা করা হয়েছে। একইভাবে, কোর্স পরিচালকের সম্মানী প্রতিদিনের জন্য ১ হাজার থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ৫০০ টাকা, কোর্স সমন্বয়কের সম্মানী প্রতিদিনের জন্য ৮০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ২০০ টাকা, সাপোর্ট স্টাফদের সম্মানী ৩০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০০ টাকা করা হয়েছে।

  এবার ৩য়-৪র্থ শ্রেণির নিয়োগের দায়িত্বে পিএসসি

প্রশিক্ষণার্থীদের চা/নাস্তার খরচ নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে প্রতিবেলা ৪০ টাকা হারে দিনে ২ বেলা সর্বোচ্চ ৮০ টাকা। তাদের দুপুরের খাবার বাবদ খরচ নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা। এসব ভাতা পুননির্ধারণের জন্য বেশ কিছু শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে। শর্তগুলো হচ্ছে-মন্ত্রণালয় বা বিভাগ, অধিদফতর, পরিদফতর এবং দফতর কর্তৃক শুধু নিজ নিজ দফতরের কর্মচারীদের বিষয়ভিত্তিক অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণের জন্য এটি প্রযোজ্য হবে।

তবে মাঠ পর্যায়ের কর্মচারীদের জন্য সদর দফতর কর্তৃক আয়োজিত প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *