Capture

সিলেটের ঐতিহ্যবাহী এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানের কক্ষ থেকে দেশি-বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় পৃথক মামলা হয়েছে।

শনিবার সকালে পুলিশ বাদি হয়ে অস্ত্র আইনে এই মামলা করেছে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাইয়ুম।

এর আগে শুক্রবার রাতে ধর্ষণের শিকার নারী ও তার স্বামীকে উদ্ধারের পর ছাত্রাবাসে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় সাইফুরের কক্ষ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, চারটি রামদা, দুটি লোহার পাইপ উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় সাইফুরকে আসামি করে মামলাটি হয়েছে।

  বান্দরবানে 'দি ইয়াং বম এসোসিয়েশন'র পরিচ্ছন্নতা অভিযান

উল্লেখ্য, শুক্রবার সন্ধ্যায় নববিবাহিতা স্ত্রীকে নিয়ে গাড়িতে করে এমসি কলেজে বেড়াতে গিয়েছিলেন দক্ষিণ সুরমার শিববাড়ি এলাকার এক বাসিন্দা। সেখানে যাওয়ার পর অভিযুক্তরা তাদের জোর করে কলেজ ছাত্রাবাসে নিয়ে আসে।

এ সময় স্বামীকে আটকে স্ত্রীকে ধর্ষণ করা হয়। খবর পেয়ে শুক্রবার রাত ১১ টার দিকে শাহপরাণ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্বামী-স্ত্রীকে উদ্ধার করে। ধর্ষণের শিকার নারীকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মারধরের শিকার স্বামীও চিকিৎসা নিয়েছেন। এঘটনায় ৯ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আমাদের বাণী ডট কম/২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০/পিপিএম