করোনা মাস্ক

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঢাকা;  এ পর্যন্ত ২১১ জন কর্মকর্তা সংক্রমিত হয়েছেন। এর মধ্যে অর্ধেকই মাঠ প্রশাসনে চাকরি করছেন। সংক্রমিত কর্মকর্তাদের তালিকায় তথ্যসচিবসহ তিনজন সচিব আছেন। করোনায় মারা গেছেন বর্তমান ও সাবেক মিলিয়ে ১১ জন কর্মকর্তা।

  • জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে। সংক্রমিত কর্মকর্তাদের মধ্যে ২০৯ জনই বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা। দুজন অন্য ক্যাডার থেকে সচিব ও যুগ্ম সচিব হন।

সংক্রমিত ১০ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। অন্য কর্মবর্তারা হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১১৩ জন। বর্তমানে প্রশাসনে মোট কর্মকর্তা প্রায় ৬ হাজার। এর মধ্যে দুই শতাধিক কর্মকর্তা সংক্রমিত হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই কাজের ওপর প্রভাব পড়ছে।

  • জানা গেছে, যাঁরা সংক্রমিত হয়েছেন, তাঁরা প্রায় সবাই দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। এর মধ্যে ১০৪ জন কর্মকর্তা মাঠপ্রশাসনে কাজ করছেন। যাঁদের মধ্যে জেলা প্রশাসক, অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার রয়েছেন।

করোনার প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তারা সারা দেশের মানুষের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা, ত্রাণ বিতরণ, হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করাসহ বিভিন্ন কাজ করে আসছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাসহ বিভিন্নভাবে এসব কাজ করতে গিয়ে মূলত নিজেরাই করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হচ্ছেন।

  • করোনাভাইরাসে সংক্রমিত গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আবুল কালাম জানালেন, তিনি নিয়মিত অফিস করতেন। ধারণা করছেন, সেখান থেকেই কোনোভাবে সংক্রমিত হয়েছেন।

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের ইউএনও কাজী লুতফুল হাসান ১৬ জুন থেকে করোনায় সংক্রমিত। এখন তিনি হোম আইসোলেশনে আছেন। তিনি বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা, ত্রাণ বিতরণ, তদন্তকাজে যাওয়াসহ বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে হয় তাঁকে। এর মাধ্যমেই হয়তো সংক্রমিত হয়েছেন।

  বাজেটে বাড়ছে সিগারেটের দাম: বেনসন ২০, গোল্ডলিফ ১৬ সর্বনিম্ম সিগারেটের দাম ৯ টাকা

সংক্রমিত অন্য কর্মকর্তাদের মধ্যে ১০৭ জন সচিবালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে কাজ করেছেন। তাঁরাও নিয়মিত অফিস করছিলেন। একাধিক মন্ত্রী ও সচিবের একান্ত সচিবও সংক্রমিত হয়েছেন। এই দপ্তরগুলোতে তুলনামূলক অন্যদের যাওয়া-আসা বেশি থাকে।

এদিকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (২৫ জুন ২০২০) তথ্য অনুযায়ী, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৯ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। ফলে ভাইরাসটিতে মোট ৬১৬২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৪৬ জন। এতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ২৬ হাজার ৫৫৩ ।  গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৭ হাজার ৯৯৯টি। শনাক্তের হার ২১.৯২ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৮২৯ জন এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৫১ হাজার ৪৯৫ জন। সুস্থতার হার ৪০.৬৭% এবং মৃত্যুর হার ১.২৮ শতাংশ। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানানো হয়, পুরুষ ৩২ জন ও নারী ৭ জন। বয়স বিশ্লেষণে জানা যায়, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৩১-৪০ একজন, ৪১-৫০ সাতজন, ৫১-৬০ ৯ জন, ৬১-৭০ ১২ জন এবং ৭১-৮০ সাতজন এবং ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে একজন। হাসপাতালে মারা গেছেন ২৮ জন এবং বাড়িতে ১১ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ৬৪৫ জনকে। আইসোলেশন থেকে ছাড় দেয়া হয়েছে ৩৭৪ জনকে।

আমাদের বাণী ডট কম/২৫ জুন ২০২০/পিপিএম