এস আবুল খায়ের

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঢাকা;  করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এস আবুল খায়ের নামে এক সহকারী কর কমিশনার মারা গেছেন। আজ  বৃহস্পতিবার দুপুরে (২৫ জুন ২০২০)  রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

  • বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (ট্যাকসেশন) এসোসিয়েশনের সভাপতি ও কর কমিশনার মো. রেজাউল করিম চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সহকারী কর কমিশনার এস এম আবুল খায়ের কেন্দ্রীয় কর জরিপ অঞ্চল, ঢাকার পিআরএলরত ছিলেন। বিভাগীয় পদোন্নতিপ্রাপ্ত এ কর্মকর্তা দীর্ঘদিন ধরে হাইপেশার (উচ্চ রক্তচাপ), ডায়াবেটিক, লিভারসহ নানা জটিল রোগে ভুগছিলেন।

তিনি আরো বলেন, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট করোনার উপসর্গ দেখা দিলে ১৮ই জুন প্রথমে তাকে রাজধানীর মগবাজারের রাজমনো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে বুধবার দিবাগত রাতে তাকে ল্যাবএইড হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ভেন্টিলেশনে স্থানান্তর করা হয়। পরে আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি মারা যান। এ কর্মকর্তার মৃত্যুতে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (ট্যাকসেশন) এসোসিয়েশন শোক জানিয়েছে।

কেন্দ্রীয় কর জরিপ অঞ্চলের সদর দপ্তর থেকে জানানো হয়, এ কর্মকর্তা করোনা আক্রান্ত ছিলেন।

  • জরিপ অঞ্চল থেকে গতবছর অবসর গ্রহণ করেন। বর্তমানে পিআরএল ছুটি ভোগ করছেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। মরহুমের জানাযার নামাজ মতিঝিল এজিবি কলোনীতে আজ বাদ আসর অনুষ্ঠিত হবে।

এস এম আবুল খায়েরের ছেলে ফরহাদ বলেন, তার বাবা দীর্ঘদিন থেকে ডায়াবেটিক, হাইপেশার, লিভারসহ নানা রোগে ভুগছেন। আজ দুপুরের দিকে তিনি মারা যান।

  ঢাকা মেডিকেলে নতুন পরিচালক নিয়োগ
  • অপরদিকে, আয়কর বিভাগে এ নিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে দুইজন কর্মকর্তা মারা গেছেন। এর আগে ৮ই জুন উপকর কমিশনার সুধাংশু কুমার সাহা করোনা আক্রান্ত হয়ে যারা যান। রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আয়কর বিভাগে করোনা আক্রান্ত হয়ে তিনি প্রথম মৃত্যুবরণ করেন

এদিকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (২৫ জুন ২০২০) তথ্য অনুযায়ী, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৯ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। ফলে ভাইরাসটিতে মোট ৬১৬২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৪৬ জন। এতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ২৬ হাজার ৫৫৩ ।  গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৭ হাজার ৯৯৯টি। শনাক্তের হার ২১.৯২ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৮২৯ জন এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৫১ হাজার ৪৯৫ জন। সুস্থতার হার ৪০.৬৭% এবং মৃত্যুর হার ১.২৮ শতাংশ। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানানো হয়, পুরুষ ৩২ জন ও নারী ৭ জন। বয়স বিশ্লেষণে জানা যায়, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৩১-৪০ একজন, ৪১-৫০ সাতজন, ৫১-৬০ ৯ জন, ৬১-৭০ ১২ জন এবং ৭১-৮০ সাতজন এবং ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে একজন। হাসপাতালে মারা গেছেন ২৮ জন এবং বাড়িতে ১১ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ৬৪৫ জনকে। আইসোলেশন থেকে ছাড় দেয়া হয়েছে ৩৭৪ জনকে।

আমাদের বাণী ডট কম/২৫ জুন ২০২০/পিপিএম