Shadow

করোনায় ক্লাব-ক্যাসিনো পাড়ায় নিস্তব্ধতা

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডেস্ক রিপোর্ট, ঢাকা; ক্যাসিনা কেলেঙ্কারির ধাক্কা সামলে ওঠার আগেই করোনার প্রকোপে প্রায় পুরোপুরি থমকে গেছে রাজধানীর অভিজাত ক্লাবগুলো। ক্লাবপাড়া হিসেবে খ্যাত মতিঝিলের স্পোর্টিং ক্লাবগুলো এখন যেন একেকটি বিরানভ‚মি। ঢাকা ক্লাব, গুলশান ক্লাবসহ অভিজাত ক্লাবগুলোতে হাতেগোনা লোকজনের আনাগোনা থাকলেও আড্ডা জমে না আগের মতো।

আর সংসদ এলাকার এমপি ক্লাবের পথ তো রীতিমতো ভুলতেই বসেছেন এমপিরা। এ ছাড়া পাঁচতারকা হোটেলগুলোর জম্পেস আড্ডাও এখন আর নেই। সন্ধ্যার পর কর্মব্যস্ত মানুষ বিনোদনের নেশায় ডুবে থাকতেন এসব ক্লাবে। চলত আড্ডা, নানা ধরনের খেলা, এমনকি ক্যাসিনোর মতো জুয়াও।

মন্ত্রী, এমপি, আমলা, ব্যবসায়ী, শিল্পপতিসহ অভিজাত মানুষদের বহনকারী গাড়িগুলোর হেডলাইটের বর্ণচ্ছটা আর কানফাটানো হর্ণে কোলাহলমুখর থাকত ক্লাবগুলোর সামনের রাস্তা। সেসব এখন অতীত। ক্যাসিনো অভিযানের পর জুয়া নিষিদ্ধ হয়ে পড়া এবং করোনা মহামারীর ঊর্ধ্বগতির কারণে মন্দা সময় যাচ্ছে প্রতিরাতে কোটি কোটি টাকা আয় করা ক্লাবগুলোর।

গভীর রাত পর্যন্ত জেগে থাকা রাজধানীর এই ক্লাবগুলোতেই এখন সন্ধ্যার পর নেমে আসে নিস্তব্ধতা। অভিজাত ব্যক্তিদের বদলে এসব জায়গায় এখন ছিঁচকে চোর আর মাদকসেবীর বিচরণ।

রাজধানীর বেশ কয়েকটি ক্লাব ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। রাজধানীর মতিঝিল এলাকার মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড, ফকিরেরপুল ইয়ংমেনস ক্লাব, ভিক্টোরিয়া ক্লাব, আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ, আজাদ স্পোর্টিং ক্লাব, সোনালী অতীত ক্রীড়াচক্র, দিলকুশা স্পোর্টিং ক্লাব, ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব, মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়াচক্রে এখন সন্ধ্যার পর গভীর নীরবতা। সব ক্লাবের ফটকে পুলিশের লাগানো তালা ঝুলছে এখনো।

ক্লাবগুলোর দায়িত্বপ্রাপ্তদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের পর ক্লাবগুলোতে এখনো পুলিশের তালা ঝুলছে। এর মধ্যে দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়েছে। এই সুযোগে ক্লাবগুলোতে চুরিও হচ্ছে। তিন মাস আগে মতিঝিলের আরামবাগ ক্লাবে পুলিশের তালা মারা দরজা ভেঙে চোর তিনটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রকসহ (এসি) বেশ কিছু মালামাল চুরি করে নিয়ে গেছে। ক্লাবগুলোতে এখন মাদকসেবীদের জমজমাট আসর।

স্থানীয়রা জানান, করোনার কারণে সন্ধ্যার পর ক্লাবপাড়া অনেকটা জনমানবশূন্য হয়ে পড়ে। সন্ধ্যায় ভুতুড়ে পরিবেশ সৃষ্টি হয়। সব দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। এই সুযোগে মাদকসেবীরা ক্লাবগুলোর প্রাচীর টপকে ভেতরে ঢুকে আড্ডা দেয়। ইয়াবা সেবন করে। তারা আরো জানান, ক্লাবের ভেতর মাদকেসেবীদের আড্ডা হলেও পুলিশ কোনো খোঁজ রাখে না। পুলিশের এক সোর্স এখন ক্লাবপাড়ায় ইয়াবাসহ অন্যান্য মাদকের বড় ডিলার। তার সহযোগীরা খুচরা ইয়াবা, গাঁজা ও ফেনসিডিলসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক এলাকায় বিক্রি করে।

  রাজধানীতে স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশউদ্ধার, স্বামী আটক

এসব বিষয়ে ক্লাবগুলোর দায়িত্বশীল কেউ মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে আরামবাগ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী বলেন, ‘যত দিন পুলিশ ক্লাবের তালা খুলে কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়ে না দেবে তত দিন এর নিরাপত্তার দায়-দায়িত্ব পুলিশের।’

এদিকে ঢাকা ক্লাব, গুলশান ক্লাবসহ রাজধানীর অভিজাত ক্লাবগুলোতে কিছু লোকের যাতায়াত থাকলেও আড্ডাটা আর আগের মতো জমছে না। টাকা ছাড়া যেসব খেলাধুলা সম্ভব শুধু সেগুলোই চলে এখানে। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঢাকা ক্লাব ও উত্তরা ক্লাব ছাড়াও গুলশান ক্লাব, বনানী ক্লাব, অফিসার্স ক্লাব, ঢাকা লেডিস ক্লাব, গুলশান ক্যাডেট কলেজ ক্লাব, চিটাগাং ক্লাব, চিটাগাং সিনিয়র্স ক্লাব, নারায়ণঞ্জ ক্লাব ও খুলনা ক্লাবের সবগুলোতে সুইমিং পুল, রেস্টুরেন্ট ও জিমনেশিয়াম রয়েছে।

তবে কোনো বার বা ক্যাসিনো নেই। এখানে কোনো জুয়া খেলাও হয় না। তা ছাড়া অসামাজিক কোনো কার্যকলাপ এখানে হয় না। যারা আসেন আড্ডা দিয়ে, খাওয়া-দাওয়া করেই চলে যান। করোনার ভয়ে সংসদের এমপি ক্লাবের পথও মাড়াচ্ছেন না এমপিরা। দায়িত্বপ্রাপ্ত দু-একজন কর্মকর্তা মাঝে-মধ্যে গিয়ে দাপ্তরিক কাজ সেরে চলে আসেন দ্রুতই।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (০৪  জুলাই ২০২০ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৯ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। ফলে ভাইরাসটিতে মোট ১৯৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার  ২৮৮ জন। এতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৫৯ হাজার ৬৭৯। আজ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৪  হাজার ৭২৭ টি যা গতদিনে ছিল ১৪   হাজার ৬৫০  টি । গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও দুই হাজার ৬৩৭ জন। এতে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৭০ হাজার ৭২১ জনে।

আমাদের বাণী ডট কম/০৫ জুলাই  ২০২০/পিপিএম 

সৈয়দপুরের বিজ্ঞাপন


শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •