কর্মস্থলে মৃত্যু হলে আজীবন আয়ের সমান ক্ষতিপূরণ দাবি শ্রমিক ফ্রন্টের

রানা প্লাজা ধসের ষষ্ঠবার্ষিকীতে ২৪ এপ্রিল রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্মেন্টস শ্রমিক শোক দিবস পালন ও কর্মস্থলে মৃত্যু হলে আজীবন আয়ের সমান ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন ও মিছিল করেছে গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জের গাবতলী পুলিশ লাইন শাখা।

মঙ্গলবার সকালে নারায়ণগঞ্জের গাবতলী- পুলিশ লাইন তাগারপাড়ে এই মানববন্ধন ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট গাবতলী-পুলিশ লাইন শাখার সভাপতি সাইফুল ইসলাম শরীফের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, নারায়ণগঞ্জ জেলার দপ্তর সম্পাদক কামাল পারভেজ মিঠু, গাবতলী-পুলিশ লাইন শাখার সাধারণ সম্পাদক হাসনাত কবীর, সহ-সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক খুরশীদ আলম।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ভয়াবহ রানা প্লাজা ধসের ষষ্ঠ বছর পূর্ণ হতে যাচ্ছে। ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে ১১৩৬ জন শ্রমিক মৃত্যুবরণ করে, নিখোঁজ হয়েছে ৩০০ জনের অধিক এবং আহত হয় ২৫০০ শ্রমিক। সারাকা, স্পেক্ট্রাম, কে.টি.এস, তাজরিন এরূপ অসংখ্য শ্রমিক হত্যাকা-ের ঘটনার বিচারহীনতার মতোই রানা প্লাজা হত্যাকা-ের জন্য যারা দায়ী এখন পর্যন্ত তাদের শাস্তি নিশ্চিত করা হয়নি। দায়িত্ব অবহেলার জন্য দায়ী অসাধু সরকারি কর্মকর্তা আর মুনাফালোভী মালিকদের বিচারের মুখোমুখি হতে হয়নি বলেই রানা প্লাজা হত্যাকা-ের পরও টেম্পাকো, মাল্টি ফ্যাবসের মত কর্মস্থলে শ্রমিকের জীবনহানির মিছিল থামানো যায়নি।

নেতৃবৃন্দ বলেন, রানা প্লাজা ধসে সহ¯্রাধিক শ্রমিক নিহতের ঘটনার পরপরই কর্মস্থলে শ্রমিকের মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণের হার কত হওয়া উচিত তার একটি প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছিল। সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট তার প্রস্তাবনায় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কোন শ্রমিক কর্মরত অবস্থায় দূর্ঘটনায় নিহত হলে  আজীবন আয়ের পরিমাণ হিসাব করে পরিবার প্রতি ৪৮ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের দাবি করেছিল। পরবর্তীতে অধিকাংশ জাতীয় পর্যায়ের শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও মালিকের আবহেলায় মৃত্যুজনিত কারণে আজীবন আয়ের সমপরিমাণ অর্থ ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিধান করার দাবি উচ্চারিত হয়েছিল। হাইকোর্টের নির্দেশনায় গঠিত ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ কমিটি ও ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিক পরিবার প্রতি ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ নির্ধারণের প্রস্তাব করেন। লাখ লাখ শ্রমিকের যথার্থ ক্ষতিপূরণের দাবিকে উপেক্ষা করে কর্মস্থলে শ্রমিকের মৃত্যুতে মাত্র ২ লাখ টাকা করে শ্রম আইন সংশোধন করেছে। আমরা অবিলম্বে শ্রম আইনের এই অগণতান্ত্রিক সংশোধোনী বাতিল করে কর্মস্থলে শ্রমিকের মৃত্যুতে আজীবন আয়ের সমান ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিধান করার দাবি জানাই।

  গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম, সম্পাদক শরীফ

নেতৃবৃন্দ ২৪ এপ্রিলকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্মেন্টস শ্রমিক শোক দিবস ঘোষণা, রানা প্লাজা ভবন ধসে শ্রমিকের মৃত্যুতে মালিকসহ দায়ীদের সর্বোচ্চ শাস্তি, রানা প্লাজা ভবনের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে শ্রমিক কলোনী এবং নিহত শ্রমিকদের স্মরণে রানা প্লাজার স্থানে ও জুরাইন কবরস্থানে শহিদ বেদী নির্মাণের দাবি করেন।

আমাদের বাণী-আ.আ.হ/মৃধা

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *