ফুলবাড়ীয়া পৌরসভার ভালুকজান আছিম সড়কের মোড়ে কাভার্ডভ্যানে গ্যাস সিলিন্ডার রেখে সিএনজি ডিসপেন্সার (গ্যাস বন্টনকারী) মেশিন দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে গাড়িতে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে ২ মাস ধরে। অনুমোদনহীন অস্থায়ী এ সিএনজি স্টেশনের অগ্নিনির্বাপক কোন ব্যবস্থা নেই। ভয়াবহ ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় যে কোন সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝেও এক ধরণের আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ফুলবাড়িয়া-কেশরগঞ্জ সড়কের পশ্চিম পাশে মৎস্য আড়ৎ সংলগ্ন জমি ভাড়া নিয়ে সিএনজি স্টেশনটি গড়ে তুলেছেন মাসুদ শিকদার। তাঁর বাড়ি পৌরসভার হাসপাতাল রোডে। সিএনজি স্টেশনটি বৈধ ভাবেই গড়ে তুলেছেন বলে দাবি করলেও স্থানীয় প্রশাসন, পরিবেশ অধিদপ্তর ও ফায়ার সার্ভিসের কোন অনুমোদন নেই।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কেশরগঞ্জ সড়কের পশ্চিম পাশে প্রায় ১০ শতাংশ জমি উপর সিএনজি স্টেশনটি। টিনসেট ছাপড়া ঘরের ভিতরে একটি সিএনজি ডিসপেন্সার মেশিন বসানো। ঘরের সামনে একটি কাভার্ডভ্যানের ভিতরে গ্যাসের সিলিন্ডার রাখা। কাভার্ডভ্যানে থাকা সিলিন্ডার থেকে পাইপের মাধ্যমে মাটির উপর দিয়ে সরাসরি সিএনজি ডিসপেন্সার মাধ্যমে গাড়িতে গ্যাস সরবরাহ করা হয়।

গাড়ির চালক ও যাত্রীরা নেমে স্টেশনের ভিতরেই ধুমপান করতে দেখা যায়। ২ মাস ধরে স্টেশনটি চালু করা হলেও কোন ধরণের অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা নেই। গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় এভাবে ঝুঁকিপূর্ণ সিএনজি স্টেশন করায় স্থানীয়রা চরম ক্ষুব্ধ। সিএনজি স্টেশনের ১০০ মিটারের মধ্যে রয়েছে আরেকটি ফিলিং স্টেশন রয়েছে। প্রতিদিন রাতে কাভার্ডভ্যানটি সিএনজি লোড করার জন্য ফুলবাড়ীয়া-ময়মনসিংহ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করে থাকে। ময়মনসিংহের কোন এক সিএনজি স্টেশন থেকে কাভার্টভ্যানটিতে সিএনজি লোড করার কথা স্বীকার করেছেন মাসুদ শিকদার। কাভার্ডভ্যানটি আসা যাওয়ার সময়ও ঘটতে পারে দুর্ঘটনা।

  ভাড়া না পেয়ে মালিকের দেওয়া আগুনে অগ্নিদগ্ধ সেই অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু

মাসুদ শিকদার বলেন, স্টেশনটি বৈধতা রয়েছে, স্থানীয় প্রশাসনের মৌখিক অনুমোদন আনা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, দুর্ঘটনা কখন ঘটবে কেউ কি বলতে পারে? ঝুঁকির কিছু নেই। এখন প্রতিদিন লজ হচ্ছে, স্থায়ী ভাবে করলে সবকিছুর ব্যবস্থা থাকবে।

উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা এসএম নুরুল ইসলাম জানান, সিএনজি স্টেশন করতে হলে আগে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা রাখতে হবে। সিএনজি স্টেশনের অনুমতি নিতে এসেছিল, তাঁকে আগে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নিয়ে আসতে বলেছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল ছিদ্দিক বলেন, অস্থায়ী সিএনজি স্টেশন অবৈধ, এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আমাদের বাণী ডট কম/৬ অক্টোবর ২০২০/পিপিএম