Shadow

মৃত ব্যাক্তিকে জীবিত সাজিয়ে জমি জালিয়াতি অভিযোগ

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

হুমায়ুন কবির, কুষ্টিয়া জেলা সংবাদদাতাঃ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার দহকুলা গ্রামের মৃত পিয়ার আলী মন্ডল ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ১লা জানুয়ারি ২০২০ তারিখে । পিয়ার আলী মারা যাওয়ার পর তার দ্বিতীয় পক্ষের বড় ছেলে পিয়ার আলী তার পৈত্রিক সম্পত্তির অংশ মোতাবেক মিউটেশন করতে গেলে ধরা পড়ে এই জালিয়াতির কাহিনী ।

আজিজুল হক রানা জানান, তার বাবার মোট ২২ বিঘা সম্পত্তির মধ্যে ৪.৩৬৭৫ একর সম্পত্তি তার সৎ তিন ভাই, কোরবান আলী, মুক্তার আলী, আবদুর রহমান এবং তার সৎ মা জফিরন নেছা কারসাজি করে তাদের নামে রেজিস্ট্রি করিয়ে নিয়েছেন ।

আজিজুল হক রানা আরো জানান, রেজিস্ট্রিকৃত সম্পত্তির দাতা হিসেবে তার বাবার নাম উল্লেখ থাকলেও দাতার ছবির স্থলে একই গ্রামের ভ্যান চালক মুজিবুর রহমান পিতা মৃত গোলাম মৃধা সাং দহকুলা এর ছবি সংযুক্ত করা হয়েছে । এই ব্যাপারে মজিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান মোহাম্মদ কোরবান আলী তার কাছ থেকে তার ছবি এবং ভোটার আইডি নেন বয়স্ক ভাতা কার্ড করে দেওয়ার জন্য ।

তিনি কখনো কাউকে কোন জমি রেজিস্ট্রি করে দেন নাই । তিনি বলেন তার ছবি নিয়ে দুষ্কৃতকারীরা অন্যায় ভাবে ব্যবহার করেছে। এ বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। কোন উপায়ান্তর না পেয়ে আজিজুল হক রানা গতকাল ১৫ই আগস্ট কুষ্টিয়ার বিজ্ঞ অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে ৭ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন ।

এজাহারে উল্লেখিত আসামিরা হলেন জমির গ্রহীতা ৪ জন। কোরবান আলী,  আবদুর রহমান, মুক্তার আলী এবং তার সৎ মা জফিরন নেছা ।
এছাড়াও সনাক্তকারী হিসাবে মোহাম্মদ ইসরাফিল হক পিতা মৃত গোলাম মোস্তফা। সাক্ষী মোঃ বিল্লাল হোসেন, পিতা-মৃত মুল্লুক চাঁদ মন্ডল এবং দাতা মোঃ মজিবর পিতা মৃত গোলাম মৃধা। উল্লেখিত ৭ জন আসামির সবার বাড়ি কুষ্টিয়া সদর উপজেলার দহকুলা গ্রামে।

  যাত্রীবাহী বাস উল্টে নিহত ২

এদিকে আজিজুল হক রানা তার বাবার সম্পত্তির বিষয়ে গ্রাম্য সালিশের আয়োজন করলেও তার সৎ ভাই এবং মা সালিশে অংশগ্রহণ না করে বিভিন্ন প্রকার তালবাহানা করে আসছে ।

আজিজুল হক রানা আরো জানান আমার পিতা মোঃ পিয়ার আলী জীবিত থাকা অবস্থায় আমার সৎ ভাইয়েরা আমার বাবার জমি তাদের নামে করে দেয়ার জন্য আমার বাবার পথ উপরে মানসিক এবং শারীরিক নির্যাতন করতো। আর সেই কারণেই আমার বাবা আমার সৎ ভাইদেরকে ২০১৮ইং সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ত্যাজ্যপুত্র করেন।

আজিজুল হক রানা জানান তার ভাইয়েরা প্রায়ই তাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসছেন। তাই তিনি তার ছোট ভাই এবং পরিবারের সদস্যরা প্রচন্ড নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন এবং তিনি আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তা কামনা করেন ।

আমাদের বাণী ডট কম/১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০/পিপিএ

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •