পাবনা জেলা

 

পাবনার সাঁথিয়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে মহিলাসহ অন্তত ৯ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে সাঁথিয়া পৗরসভাধীন নওয়ানী গ্রামে।

আহতরা হলেন, নওয়ানী মহল্লার মৃত নুরুল প্রাং এর ছেলে মুছা (৭০),মুছা প্রাং এর ছেলে মিজান (৩৫),রমজান (৩৮), মিজানের ছেলে হাফিজ (১৪) ও রমজানের ছেলে শাকিব (১৮)।

অপর পক্ষের একই গ্রামের আব্বাসের ছেলে আল হক (৩৫), শিউলি (২১),আল্লাদী (১৮) ও আল হকের ছেলে আশিক (৯)। তাদের সাঁথিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার সকালে নওয়ানী মহল্লায় কেরাম বোর্ড খেলাকে কেন্দ্র করে জনৈক আল হকের ছেলে আশিককে পিটুনি দেয় একই মহল্লার মিজানুরের ছেলে হাফিজ। ছেলেকে মারধোরের প্রতিশোধ নিতে আল হক মিজানুরের বাড়ি গিয়ে তাদের পরিবারের লোকজনকে বকাঝকা করেন।

  পাঁচ হাজার অসহায়-অভুক্তদের মাঝে খাবার তুলে দিয়ে বাসদের ঈদ উদযাপন

এরপর বুধবার দুপুরে আলহক তার বোন শিউলি খাতুনকে সাথে নিয়ে সাঁথিয়া বাজারে যাওয়ার সময় প্রতিপক্ষের লোকজন তাদের মারধোর শুরু করেন। এ সময় উভয় পক্ষের মহিলাসহ ৯ জন আহত হন।

আহত শিউলি জানান, প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে ও তার ভাই আল হককে ভ্যান থেকে টেনে নামিয়ে মারপিট করে তার স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নেয়।

এদিকে প্রতিপক্ষের রমজান প্রাং জানান, আল হক তাদের বাড়ি গিয়ে তাদরে লোকজনকে মারপিট করেছে।

এ ব্যাপারে সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, তিনি ঘটনাটি শুনেছেন। তবে এ পর্যন্ত লিখিত অভিযোগ পাননি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।