Shadow

চট্টগ্রামে বিয়ের ৬ মাসের মাথায় করোনায় আক্রান্ত দম্পতি, স্বামীর মৃত্যু

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডেস্ক রিপোর্ট;  বিয়ের ছয় মাস পর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ফরহাদ হোসেন (৩৩) নামে এক ব্যক্তি। দীর্ঘ ২৬ দিন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর আজ শনিবার (০৬ জুন ২০২০)  সকাল ৮টায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

  • নিহত ফরহাদ হোসেনের স্ত্রী ফারহানা কাদের ও তার ভাই আরফাত হোসেনও করোনা পজিটিভ। তবে তারা বর্তমানে সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছে পারিবারিক সূত্র।

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. শফিকুল ইসলাম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, উপসর্গ থাকায় ৩ সপ্তাহ পূর্বে নমুনা পরীক্ষা করা হলে ফরহাদ হোসেনের করোনার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপর থেকেই চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। সেখানে আজ সকালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

  • ফরহাদ হোসেন রাউজান উপজেলার গহিরা ইউনিয়নের আবদুল শুক্কুরের বড় ছেলে। দীর্ঘদিন পরিবারসহ চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ থানাধীন টেক্সটাইল এলাকায় বসবাস করতেন। একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন ফরহাদ।

জানা গেছে, ছয় মাস পূর্বে সাতকানিয়া উপজেলার বাসিন্দা চট্টগ্রাম নগরীতে বসবাসরত ফারহানা কাদেরের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ফরহাদ।

  • পারিবারিক সূত্র আরও জানিয়েছে, মা-বাবার উপসর্গ না থাকায় এখন পর্যন্ত তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি। আগামীকাল রোববার তাদের নমুনা পরীক্ষার জন্য দেওয়ার কথা রয়েছে। নিহত ফরহাদ হোসেন দুই ভাই এক বোনের মধ্যে সবার বড়।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (০৬ জুন ২০২০) তথ্য অনুযায়ী,গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৫ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। ফলে ভাইরাসটিতে মোট ৮৪৬  জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন দুই হাজার ৬৩৫ জন। এতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৬৩  হাজার ০২৫ জনে। নতুন করে সুস্থ্য হয়েছে  ৫২১ জন এবং মোট সুস্থ হয়েছেন ১৩৩২৫ জন।  ৫০টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১২ হাজার ৯০৯টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ১২ হাজার ৪৮৬টি। আক্রান্তের হার ২১.১০ শতাংশ।  ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫২১ জন এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৩ হাজার ৩২৫ জন। সুস্থতার হার ২১.১৪ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১.৩৪ শতাংশ। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানানো হয়, পুরুষ ২৮ জন ও নারী সাতজন। বয়স বিশ্লেষণে জানা যায়, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে দুইজন, ২১-৩০ তিজন, ৩১-৪০ দুইজন, ৪১-৫০ তিনজন, ৫১-৬০ ১০ জন, ৬১-৭০ পাঁচজন, ৭১-৮০ ৯ জন এবং ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে একজন।

  আগে ছিলেন পানি ব্যবসায়ী এখন এমবিবিএস ডাক্তার

আমাদের বাণী ডট কম/০৬ জুন ২০২০/সিসিপি

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •