করোনা উপসর্গ

চাঁদপুর সংবাদদাতা; জেলায়  করোনার উপসর্গে গত ২৪ ঘন্টায় ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে মতলব উত্তর উপজেলায় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা, কচুয়ায় একটি ওষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধি, মতলব দক্ষিণ উপজেলায় একই বাড়ির ২জন এবং হাজীগঞ্জের ২ জন রয়েছেন।

  • করোনার উপসর্গ নিয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলার ৬নং বড়কূল পূর্ব ইউনিয়নের সেন্দ্রা গ্রামের শামসুন্নাহার (২৭) ও পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডে বিলকিছ বেগম (৫৫), মতলব দক্ষিণ উপজেলার উপাদী উত্তর ইউনিয়নের দক্ষিণ ডিঙ্গাভাঙ্গা গ্রামের মো. মিজান বকাউল (৫৫), একই বাড়ির বাচ্চু বকাউলের স্ত্রী মনি বেগম (৫০), কচুয়ায় ‘ইউনিমেড ইউনিহেলথ’ কোম্পানীর রিপ্রেজেন্টেটিভ আব্দুল হাকিম (৪০) ও মতলব দক্ষিণ ও মতলব উত্তর উপজেলার হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আব্দুল বারেক (৫৬) উপসর্গে মৃত্যু হয়।

অপরদিকে, সিভিল সার্জন শাখাওয়াত উল্লাহ জানান, চাঁদপুরে জেলায় বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত ৬৫২ জনের উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যানের মধ্যে চাঁদপুর সদরে ২৬৭ জন, শাহরাস্তিতে ৮৪ জন, মতলব দক্ষিণে ৭৪ জন, হাজীগঞ্জে ৬৬ জন, ফরিদগঞ্জে ৬৩ জন, হাইমচরে ৩৬ জন, মতলব উত্তরে ৩৩জন ও কচুয়ায় ২৯জন। জেলায় মোট ৪৯ জন মৃতের উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যান হলো : হাজীগঞ্জে ১৪ জন, চাঁদপুর সদরে ১৩ জন, ফরিদগঞ্জে ৬ জন, কচুয়ায় ৫ জন, মতলব উত্তরে ৫ জন, শাহরাস্তিতে ৪ জন ও মতলব দক্ষিণে ২জন।

  হাতিয়ায় ১৬ বস্তা ত্রাণের চালসহ ইউপি মেম্বার আটক

এদিকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (২৫ জুন ২০২০) তথ্য অনুযায়ী, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৯ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। ফলে ভাইরাসটিতে মোট ৬১৬২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৪৬ জন। এতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ২৬ হাজার ৫৫৩ ।  গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৭ হাজার ৯৯৯টি। শনাক্তের হার ২১.৯২ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৮২৯ জন এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৫১ হাজার ৪৯৫ জন। সুস্থতার হার ৪০.৬৭% এবং মৃত্যুর হার ১.২৮ শতাংশ। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানানো হয়, পুরুষ ৩২ জন ও নারী ৭ জন। বয়স বিশ্লেষণে জানা যায়, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৩১-৪০ একজন, ৪১-৫০ সাতজন, ৫১-৬০ ৯ জন, ৬১-৭০ ১২ জন এবং ৭১-৮০ সাতজন এবং ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে একজন। হাসপাতালে মারা গেছেন ২৮ জন এবং বাড়িতে ১১ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ৬৪৫ জনকে। আইসোলেশন থেকে ছাড় দেয়া হয়েছে ৩৭৪ জনকে।

আমাদের বাণী ডট কম/২৫ জুন ২০২০/পিপিএম