Shadow

চাকরি হারানোর ক্ষোভে ইউএনওকে হত্যার চেষ্টা: পুলিশ

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনাজপুরঃ জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলার সদ্য সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলী শেখের ওপর হত্যাচেষ্টা মামলায় আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আসামি রবিউল ইসলাম।

আজ রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির ওসি ইমাম জাফর।

তিনি বলেন, দুই দফায় মোট নয় দিনের রিমান্ড শেষে রবিউলকে রোববার সকালে দিনাজপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৭-এর বিচারক ইসমাইল হোসেনের আদালতে তোলা হয়। রবিউল আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। এরপর আদালত থেকে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, গত জানুয়ারিতে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের ব্যাগ থেকে টাকা চুরির অভিযোগে ইউএনও তার অফিসের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী (মালি) রবিউল ইলামকে সাময়িক বরখাস্ত করেন। এ কারণে রবিউল ক্ষুব্ধ হন। ১ সেপ্টেম্বর তাকে চাকরি থেকে চূড়ান্ত বরখাস্ত করা হয়। আর এতেই রবিউল আরো ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে হত্যার সিদ্ধান্ত নিয়ে হামলা করেন।

রবিউল একাই ইউএনও এবং তার বাবাকে হত্যার চেষ্টা করেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে সকাল ১০ টার দিকে এই মামলার একমাত্র আসামি রবিউলকে কড়া নিরাপত্তা নিয়ে দিনাজপুর আদালতে তোলা হয়। প্রায় তিন ঘন্টা পর দুপুর ১টার দিকে তিনি বিচারকের সামনে স্বীকারাক্তিমূলক জবানবন্দি শুরু করেন এবং বিচারক তা লিপিবদ্ধ করেন।

  আগামী ৩ দিন ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা, ভূমিধসের আশঙ্কা

গত ২ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে একদল দুর্বৃত্ত মই বেয়ে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনের ভেন্টিলেটর ভেঙে বাসায় ঢুকে তাকে হাতুড়ি দিয়ে পেটাতে শুরু করে। এ সময় ইউএনওর চিৎকার শুনে পাশের কক্ষে থাকা তার বাবা ছুটে এসে মেয়েকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে দুর্বৃত্তরা তাকেও জখম করে। পরে কোয়ার্টারের অন্য বাসিন্দারা তাদের চিৎকার শুনে পুলিশকে খবর দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁদের রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ওয়াহিদা খানমকে ঢাকায় আনা হয়। রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। ধীরে ধীরে তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন।

আমাদের বাণী ডট কম/২০ সেপ্টেম্বর/বিবিবার

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •