ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষককে জুতা পায়ে স্মৃতি সৌধে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। তিনি ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিকাশ চন্দ্র সিংহ।

মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে শহীদ স্মৃতি সৌধে পুস্পার্ঘ অর্পণ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনসহ বিভিন্ন বিভাগ, আবাসিক হল ও সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন।

এসময় ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা পুস্পার্ঘ অর্পণ করতে শহীদ স্মৃতি সৌধে ওঠে। তাদের পুস্পার্ঘ অর্পণ শেষ হলে ওই শিক্ষককে শহীদ বেদীর সামনের দিকে জুতা পায়ে অবস্থায় দেখা যায়।

এসময় প্রতিবেদকের নজড়ে এলে ছবি তুলতে গেলে তিনি দ্রুত শহীদ বেদি ত্যাগ করেন। পুস্পার্ঘ অর্পণের সময় স্মৃতি সৌধে জুতা পায়ে অবস্থান নিয়ে ওই শিক্ষকের মন্তব্য জানতে ফোন করলে দেখা করতে বলেন। পরে তার সাথে দেখা করলে ‘কোন মন্তব্য নেই’ জানিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন।

আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের আহ্বায়ক আলমগীর হোসেন আলো বলেন,‘বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক সমাজের সবথেকে সচতেনদের অন্যতম। তিনি শহীদদের অসম্মান করেছেন। তাকে অবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বরখাস্ত করার দাবি জানান। একই সাথে তিনি সকল শিক্ষার্থীদের তার ক্লাস বর্জনের আহ্বান জানান।

বিভাগের সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক ড. শরিফুল ইসলাম বলেন,‘আমি বেদিতে ওঠার সময় সকল শিক্ষক শিক্ষার্থীকে জুতা খুলে উঠতে বলেছিলাম। আর শিক্ষকের শহীদ বদিতে জুতা পায়ে ওঠা নিয়ে আমার মন্তব্য নেই।

আমাদের বাণী-আ.আ.হ/মৃধা

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।