ঝিনাইদহের মহেশপুরে দিবাগত রাত আনুমানিক ২ টার দিকে নিজ বাড়িতে ইমরান নামে এক মাদকাসক্ত যুবক তার মা মর্জিনা খাতুন ও নানী সামসুন্নাহারকে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত  ২টার দিকে মহেশপুর পৌর এলাকার নওদা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আনুমানিক রাত ২টার দিকে হঠাৎ মাদকাসক্ত ইমরানের বাড়িতে চিৎকার শুনতে পাওয়া যায়। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসলে ইমরান পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝেতে পড়ে থাকা তার মা এবং নানী কে উদ্ধার করে যশোর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এলাকাবাসী আরো জানান, মাদকাসক্ত ইমরান অনেক আগের থেকেই প্রতিনিয়ত এ ধরনের পরিবারের সাথে বিবাদ করে আসছিল।

এদিকে নিহত মর্জিনা খাতুন মহেশপুর বালিকা বিদ্যালয়ের দীর্ঘদিন শিক্ষকতা করে আসছিল বলে জানা গেছে। স্বামী পরিত্যাক্তা মর্জিনা খাতুন তার ছেলে ও মাকে নিয়ে একই বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছিল।

প্রায় ২০ বছর আগে মায়ের সঙ্গে বাবার বিবাহ বিচ্ছেদের পর ইমরান হোসেন মায়ের সঙ্গে মহেশপুরের নওদা গ্রামে নানা নুর মোহম্মদের বাড়িতে থাকতো। ইমরান হোসেন ঝিনাইদহ জেলা শহরের হামদহ এলাকার এনায়েত উল্লাহর ছেলে।

মহেশপুর থানা পুলিশের ওসি রাশেদুল আলম জানান, ইমরান হোসেন মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন ছিল। প্রায়ই সে মা মর্জিনা খাতুন ও নানি শাসুন্নাহারকে মারধর করতো। এরই ধারাবাহিকতায় রাতে হয়তো ওষুধ খাওয়ানো নিয়ে মা ও নানির সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে সে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদের কুপিয়ে জখম করে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।

যশোর কোতয়ালি থানার এসআই শারমিন জানান, শুক্রবার ভোর সোয়া ৪টার দিকে রক্তাক্ত অবস্থায় মা-মেয়েকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।