dr.Kamal file photo

নিউজ ডেস্ক ঢাকাঃ আগের কাঠামোতে আর কার্যকর থাকছে না গণফোরাম । সভাপতি ড. কামাল হোসেনের পরিবর্তে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের একটি কাঠামো তৈরির কার্যক্রম চলছে।

একটি বিশ্বস্ত সুত্রে জানা যায়, সামনের জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি ছাড়াও বিভিন্ন দলের পাশাপাশি বামপন্থী কিছু দলকে সম্পৃক্ত করে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি।

গত ৯ জুলাই বিএনপির গবেষণা সেল বিএনআরসির (বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ সেন্টার) উদ্যোগে একটি ভার্চুয়াল সভায় সংশ্লিষ্ট দলগুলোর নেতারা জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার বিষয়ে বক্তব্য দেন। সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়াও নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না এবং বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ বক্তব্য দেন।

২০১৮ সালের নির্বাচনের পর থেকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট দুর্বল হয়ে পড়ে। এর কারন হিসেবে জোটের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেন নির্বাচন করতে রাজি না হওয়াকেই দুষছেন অনেক নেতা। বিএনপি মনে করে, ওই কারণে নেতৃত্বহীন অবস্থায় নির্বাচন করতে হয়েছে এবং আন্তর্জাতিক মহল এতে রুষ্ট হয়েছে।

  করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত যে ৫ জেলা

তাঁরা মনে করেন, ড.কামাল যদি নির্বাচনে আসতো তাহলে সে ব্যাপক ভোটে জয়ী হত।

জানতে চাইলে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘নেতৃত্ব ছেড়ে দেব কি না এখনই বলতে পারছি না। তবে কি করা হবে সেটি সবাইকে নিয়ে বসে ঠিক করব।’ তিনি বলেন, ‘সবাইকে নিয়ে বৃহত্তর ঐক্য গঠন করতে পারলে জোটের কাঠামোও নতুন করা যাবে। আমরা বৃহত্তর ঐক্য গঠনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

গণফোরাম মহাসচিব ড. রেজা কিবরিয়ার এ প্রসঙ্গে মত হলো : দেশের মানুষ এখনো ড. কামাল হোসেনের মতো মানুষের কথা শুনতে চায়। ফলে তাঁর নেতৃত্বের বিষয়ে কী হবে সেটি আলোচনা করে ঠিক করতে হবে।

গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরীর জানান, ‘ড. কামাল হোসেন কখনোই একক নেতৃত্বে বিশ্বাসী নন, সেদিক থেকে বিবেচনা করলে যৌথ নেতৃত্বে ঐক্যফ্রন্ট চলার অসুবিধা দেখছেন না তিনি।