রাজধানীর ভবন

ডেস্ক রিপোর্ট, ঢাকা;  ঢাকার ভেতর সবচেয়ে বেশি রোগী রয়েছে মহাখালীতে এলাকায়। সেখানে মোট রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৩৭ জন। এরপরে যাত্রাবাড়ীতে শনাক্ত হয়েছে ৩০৭ জন আর কাকরাইলে শনাক্ত হয়েছে ২৯৮ জন। দুইশর বেশি রোগী পাওয়া গেছে মুগদায় (২৯৫, মোহাম্মদপুরে (২৮০), রাজারবাগ (২১৩), উত্তরায় (২১১), মিরপুরে (২০৭)। বেশি রোগী রয়েছে মগবাজারে (১৯৭), তেজগাঁয়ে (১৭৭) লালবাগে (১৬২), খিলগাঁয়ে (১৫০) ধানমণ্ডিতে (১৪৯), বাবু বাজার এলাকায় (১৪৩), মালিবাগে (১৩১) O বাড্ডায় (১২৭)।

বাংলাদেশের ৬৪টি জেলাতেই করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। রোগী শনাক্তের দিক থেকে ঢাকার পরেই সবচেয়ে বেশি রোগী পাওয়া গেছে নারায়ণগঞ্জে, প্রায় ১ হাজার ৮৩৭ জন। এই শহরটিকে বাংলাদেশে করোনাভাইরাস রোগের নতুন কেন্দ্রস্থল বলে বর্ণনা করেছিলেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। চট্টগ্রামে রোগী শনাক্ত হয়েছে ১,৭৮৯ জন। রোগী শনাক্তের দিক থেকে এরপরেই রয়েছে উপজেলা মুন্সিগঞ্জ (৬০১), গাজীপুর (৫৯১), কুমিল্লায় (৫৬৭), কক্সবাজারে (৪১০), ময়মনসিংহ (৩৯৯), রংপুরে (৩৮০) জন। নোয়াখালীতে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৭৮ জন। সবচেয়ে কম রোগী শনাক্ত হয়েছে মেহেরপুরে, ১২ জন। কম রোগী রয়েছে ভোলা (১৪) ও সিরাজগঞ্জেও (১৫) সূত্র: বিবিসি

  বেকারত্ব দূরীকরণে প্রত্যেক স্কুলে শিক্ষকের দুই নতুন পদ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (২৬ মে ২০২০) তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাস শনাক্তে ঈদের দিনও অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় চার হাজার ৪১৬টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় আগের কিছু মিলিয়ে পাঁচ হাজার ৪০৭টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো দুই লাখ ৫৮ হাজার ৪১১টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় আরও এক হাজার ১১৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ হাজার ৭৫১ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও ২১ জন। ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫২২ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও ২৪৫ জন। এ নিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল সাত হাজার ৫৭৯ জনে।

আমাদের বাণী ডট কম/২৬ মে ২০২০/সিসিপি