দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার একমাত্র কোল্ডস্টোরেজের (হিমাগার) বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২। এতে পচে নষ্ট হচ্ছে ২২ কোটি ২৫ লাখ টাকার আলু। সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় গত ৫ দিন ধরে বিদ্যুৎ নেই ওই কোল্ডস্টোরেজে। এতে অরক্ষিত হয়ে পড়েছে হিমাগারে থাকা ফুলবাড়ীসহ চার উপজেলার ৬ হাজার কৃষক ও ব্যবসায়ীর আলু।

দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর মহাব্যবস্থাপক বলছেন, তিন মাস বিদ্যুৎ বিল বাকি থাকার কারণে তারা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছেন।

ফুলবাড়ী কোল্ডস্টোরেজের ব্যবস্থাপক গোলাম মস্তোফা বলেন, করোনা দুর্যোগ ও দীর্ঘ সময় থেকে বৃষ্টিপাত হওয়ায় কৃষকরা আলু রোপণের জন্য জমি তৈরি করতে পারেননি। ফলে কৃষকরা আলু ছাড় না নেয়ায় তারা সময়মতো বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে পারেনি। কৃষকদের আলু ছাড় নেয়া হলে তারা বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করবেন।

এদিকে ফুলবাড়ী উপজেলার রাজারামপুর গ্রামের আলুচাষি মমিনুল ইসলাম ২০ বস্তা, খয়েরবাড়ী গ্রামের আব্দুল কাদের ২৫ বস্তা, আমবাড়ী গ্রামের দয়াল ঠাকুর ৫০ বস্তা বীজ আলু রেখেছেন। তারা জানান, যখন আলু রেখেছেন তখন কোল্ডস্টোরেজের মালিক আলু ভাড়ার টাকা জমা নিয়েই হিমাগারে আলু রেখেছেন। এখন তারা বিদ্যুৎ বিল নিয়ে নাটক করছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কোল্ডস্টোরেজের কর্মকর্তা বাঁধন জানান, ৪৭ লাখ টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে। দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জিএমকে অনুরোধ করেছি। আমরা আপাতত ১০ লাখ টাকা পরিশোধ করে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য বলেছি। বাকি টাকা কিস্তির মাধ্যমে দিতে চাচ্ছি। কিন্তু পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ কর্তৃপক্ষ সেটাতে রাজি হয়নি।

  স্বামী শেখ পরশের জন্মদিনে আবেগঘন বার্তা এড. যূথীর

কোল্ডস্টোরেজের মালিকের সঙ্গে দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২’র রশি টানাটানিতে বিপাকে পড়েছেন কৃষকরা।

কৃষকরা বলছেন, এ বছর টানা বৃষ্টিপাতের কারণে তারা আলু রোপণের জন্য জমি তৈরি করতে পারছেন না। এখন যদি আলুর বীজ নষ্ট (পচে যায়) হয়ে যায় তাহলে তারা আলু রোপণের মৌসুমে বীজ সঙ্কটে পড়বেন।

ফুলবাড়ী কোল্ডস্টোরেজ সূত্রে জানা গেছে, এই কোল্ডস্টোরেজে ফুলবাড়ীসহ পার্বতীপুর, নবাবগঞ্জ, বিরামপুর ও চিরির বন্দর উপজেলার আলুচাষিরা বীজ সংরক্ষণ করেন। বিদ্যুৎ সংযোগের অভাবে যদি আলুর বীজ নষ্ট হয় তাহলে ফুলবাড়ীসহ চার উপজেলার আলু চাষিদের বীজ সঙ্কট দেখা দেবে। এজন্য আলুচাষিরা বিদ্যুৎ সংযোগ পুনঃস্থাপনের জন্য কোল্ডস্টোরেজ কর্তৃপক্ষ ও দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ফুলবাড়ী কোল্ডস্টোরেজে ১ লাখ ১০ হাজার বস্তা আলু রয়েছে। যার মধ্যে ৪০ হাজার বস্তা আলু বীজ হিসেবে এবং ৭০ হাজার বস্তা আলু তরকারি হিসেবে ব্যবহারের উপযোগী। এরমধ্যে বীজের ৪০ হাজার বস্তা আলুর মূল্য ১০ কোটি টাকা। আর সবজি হিসেবে ব্যবহার উপযোগী ৭০ হাজার বস্তা আলুর মূল্য ১২ কোটি ২৫ লাখ টাকা।

আমাদের বাণী ডট কম/৬ অক্টোবর ২০২০/পিপিএম