Shadow

প্রাথমিকে প্যানেলে নিয়োগ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিকট খোলা চিঠি

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডেস্ক রিপোর্ট, ঢাকা;  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সঙ্কট নিরসনে প্যানেলে নিয়োগ দিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেগ ঘন খোলা চিঠি লিখেছেন সুলতানা বেগম নামে এক প্যানেল প্রত্যাশী । আমাদের বাণী ডট কম পাঠকদের জন্য খোলা চিঠিটি হুবহু তুলে ধরা হল;

‘হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী,বাংলার কোটি কোটি মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন,স্বাধীন বাংলাদেশের স্হপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য উত্তরসুরী ডিজিটাল বাংলার স্বপ্নদ্রষ্টা, গনতন্ত্রের মানসকন্যা এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নির্বাচিত বার বার সফল প্রধানমন্ত্রী, মাদার অব হিউমিনিটি, মমতাময়ী মা দেশনেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের স্বশ্রদ্ধ সালাম নিবেন, আসসালামু আলাইকুম।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, দেশের এই সংকটময় মুহূর্তে সকল খাতের ন্যায় শিক্ষা খাতও খুব-ই বিপর্যস্ত। প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্তা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত। শিক্ষা খাত যেকোন দেশের জন্য খুবই গুরুত্বপুর্ন।

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রভাবে সারা বিশ্বের ন্যায় আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাও অনেকটা ভেঙে পড়েছে ,বিশেষ করে প্রাথমিক শিক্ষা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই করোনা পরবর্তী এ সংকট কাটিয়ে উঠতে প্রাথমিক প্যানেলে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া এখন সময়ের দাবি।

বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে শিক্ষক সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে।  মুজিববর্ষকে স্মরণীয় করে রাখতে এবং প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী প্রতি ঘরে ঘরে একজন করে সরকারি চাকরি প্রদান ও করোনা পরবর্তী শিক্ষা প্রণোদনা হিসেবে প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগে প্যানেল শিক্ষকদের দাবি এখন সর্বমহলে আলোচিত।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর দেওয়া তথ্যমতে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে সারাদেশে ২৮ হাজার ৮৩২টি সহকারি শিক্ষকের শূন্য পদ ছিল। বর্তমানে সে সংখ্যা ৬০ হাজারে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। শিক্ষকের এই চরম সংকট নিরসনে প্যানেল শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি নরসিংদী জেলার প্যানেল প্রত্যাশীদের পক্ষ থেকে।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ -২০১৮ তে ২৪ লাখ প্রতিযোগি অংশ গ্রহন করে। যার মধ্য থেকে ৫৫ হাজার প্রার্থী তাদের মেধার স্বাক্ষর রেখে লিখিত পরীক্ষায় কৃতকার্য হয়ে ভাইবার জন্য নির্বাচিত হয়। সেখান থেকে ১৮ হাজার নিয়োগ দেয়ার পর ৩৭ হাজার মেধাবী বেকার আপনার দিকে তাকিয়ে আছে। আমরা লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। তাই, আমরা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ- ২০১৮ তে প্যানেলের মাধ্যমে নিয়োগ চাই।

  চাকরিতে প্রবেশসীমা ৩৫ ঘোষণা না করা পর্যন্ত রাজপথে থাকবে আন্দোলনকারীরা

আপনি বলেছেন মুজিব শতবর্ষে কেউ বেকার থাকবে না, এবং দিয়েছেন ঘরে ঘরে সরকারী চাকরীর আশ্বাস। বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম বারের মতো ২৪ লাখ পরিক্ষাথীর মধ্যে ২.৩% হারে মাত্র ৫৫২৫৭ জন প্রাথী লিখিত পরীক্ষায় উত্তির্ন হন। এখানে সবাই যোগ্যতা সম্পন্ন।

হে মহান মমতাময়ী মা দেশের এই করুন পরিস্থিতিতে শিক্ষার ক্ষতি ও শিক্ষক সংকট দুর করে প্রাথমিক শিক্ষাকে শক্তিশালী করতে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮’এর লিখিত পরিক্ষায় উত্তীর্ণ ৩৭০০০ প্যানেল প্রত্যাশী কে প্যানেল গঠন করে নিয়োগ প্রদান করার জন্য আপনার সুদৃষ্টি কামনা করছি।

আমরা বিশ্বাস করি দেশের প্রাথমিক শিক্ষক সংকট দুর করতে আপনি এই ৩৭ হাজার মেধাবী বেকারদের মুজিব বর্ষের উপহার হিসেবে নিয়োগ দিবেন।

হে বিশ্বের সৎ নেত্রী; আমরা আরও বিশ্বাস করি বাংলাদেশের যে কোন সমস্যা আপনি আপনার পিতার মতই সুদক্ষ পরিচালনা দিয়ে সমাধান করবেন।আপনার কাছে আমাদের আকুল আবেদন,মুজিববর্ষের শ্রেষ্ঠ উপহার হিসেবে আমাদেরকে প্রাথমিকে প্যানেলে নিয়োগ দিবেন।

নরসিংদী জেলার প্যানেল প্রত্যাশী সর্বপোরি সারাদেশের প্যানেল প্রত্যাশীরা আপনার একটি সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।পরিশেষে আপনার দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছি।

সুলতানা বেগম,

মহিলা বিষয়ক সম্পাদক

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮ প্যানেল প্রত্যাশী কমিটি, নরসিংদী জেলা।

আমাদের বাণী ডট কম/২৭  জুন ২০২০/পিপিএম 

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •