সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের কষ্ট লাঘব ও পাঠদানে গতিশীলতা আনতে দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘হিসাবরক্ষক’ পদ সৃষ্টি করা হবে। দেশে বর্তমানে ৬৫ হাজার ৯৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এসব স্কুলে একজন করে হিসাবরক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। এ হিসাবে সারা দেশে নিয়োগ পাবেন ৬৫ হাজার ৯৯ জন হিসাবরক্ষক।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে বিদ্যালয়ের সব ধরনের হিসাব সংরক্ষণ, পরিচালনাসহ বিদ্যালয়ের দাপ্তরিক সব কাজ  দেখতে হয়। এ ছাড়া সরকারের নানা ধরনের নির্দেশনামূলক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত থাকার কারণে বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম তত্ত্বাবধান ও সমন্বয় সঠিকভাবে করতে পারছেন না প্রধান শিক্ষকরা। শুধু প্রধান শিক্ষক নন, সিনিয়র শিক্ষকদেরও এসব কাজে ব্যস্ত থাকতে হয়। এর ফলে শিক্ষার্থীরা নির্দিষ্ট সময়ে ক্লাস পাচ্ছেনা। ফলে শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে পড়ছে।

  উপকূলে প্রাথমিকের সকল শিক্ষক-কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল

শিক্ষকদের পাঠদানে গতিশীলতা আনতে এ  পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে । মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দপ্তর জানায়, পদ সৃজন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনসহ অন্যান্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে খানিকটা সময় লাগবে।

চলতি অর্থবছরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হিসাব রক্ষক পদের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হতে পারে। আবেদনের যোগ্যতা  যেকোনো স্বীকৃত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে বাণিজ্যে স্নাতক চাওয়া হতে পারে।

আমাদের বাণী/আল-আমিন মাসুম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *