প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়

আগামী (২০১৯-২০২০) অর্থ বছরের জন্য ৬১ হাজার ৯৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বরাদ্দ চাইবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই অর্থ ব্যয় করা হবে শ্রেণিকক্ষের উন্নয়ন, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষার কারিকুলাম আপডেটের কাজে।

এই অর্থ গতবারের চেয়ে ৯ হাজার ১৮ কোটি টাকা বেশি। গত অর্থবছরে প্রস্তাব করা হয়েছিল ৫৩ হাজার ৫৪ কোটি টাকা। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের জন্য শিক্ষা খাতের প্রস্তাবিত বরাদ্দের মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুই বিভাগের জন্য বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে মোট ৩৭ হাজার ৭৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

এর মধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে ২৯ হাজার ৬২৪ কোটি ৯০ লাখ এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের জন্য ৭ হাজার ৪৫৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আর প্রাথমিক ২৪ হাজার ২৯ কোটি ২৫ লাখ টাকা বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে।

  বোর্ডের অনুমতি ব্যতিত টিসি দিতে পারবেন না প্রধান শিক্ষক

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব আকরাম আল হোসেন তিনি বলেন, ‘শিক্ষকদের বেতনবৈষম্য দূর করা, ক্লাসরুম নির্মাণ ও সব প্রতিষ্ঠানে মিড ডে মিল চালুর জন্য গুরুত্ব দিয়ে বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে।’

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, ‘নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তিসহ বিভিন্ন উন্নয়নখাতের গুরুত্ব দিয়ে বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। উন্নয়ন খাত, প্রশিক্ষণ ও প্রকল্পসহ প্রধান খাতগুলোতে বরাদ্দ বাড়িয়ে প্রস্তাব করা হয়েছে।’

সদ্য বদলি হওয়া কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর (বর্তমানে নির্বাচন কমিশনের সচিব) বলেন, ‘মানসম্মত শিক্ষার জন্য সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে এবার গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। শিক্ষক নিয়োগ, ক্লাসরুম উন্নয়ন ও শিক্ষকদের প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ণ খাতে বরাদ্দ বেশি চাওয়া হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *