ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ

ফরিদপুর সংবাদদাতা; জেলায়  করোনাভাইরাস শনাক্তের সংখ্যা দুইশ’র ঘর পেরুলো। সর্বশেষ ফরিদপুরে নতুন করে আরও ২৪ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে ফরিদপুর জেলায় করোনাভাইরাস শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২০৪ জন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

নতুন করে যে ২৪ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছে ফরিদপুর শহরসহ সদরে ১৩, ভাঙ্গায় ৫, সদরপুরে ২ এবং বোয়ালমারী, আলফাডাঙ্গা, মধুখালী ও সালথায় ১ জন। এনিয়ে ফরিদপুর সদরে সর্বমোট ৫৮ জন, বোয়ালমারীতে ৪২ জন, ভাঙ্গায় ৩৩, আলফাডাঙ্গায় ২৪ জন, নগরকান্দায় ২১ জন, চরভদ্রাসনে ১২, সদরপুরে ৬ জন, মধুখালীতে ৫ জন এবং সালথায় ৩ জন রোগীর সন্ধান পাওয়া গেলো।

জানা গেছে, ফরিদপুর সদরে আক্রান্তদের মধ্যে পাঁচজনই আত্মীয়-স্বজন। তারা শহরের নিলটুলী মহল্লার বাসিন্দা। আক্রান্তদের মধ্যে শহরের রঘুনন্দনপুর এলাকায় ১ বছর বয়সী এক মেয়ে শিশুও রয়েছে।

সদরপুরে আছেন শৈলডুবিতে একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক ব্যাক্তিও রয়েছেন।

ফমেকের পিসিআর ল্যাব সূত্রে জানা গেছে, বুধবার ফরিদপুর ও গোপালগঞ্জের মোট ১৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। মোট পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে ৩৫ জন। এর মধ্যে ফরিদপুরে একটি ফলোআপসহ ২৫ জন এবং গোপালগঞ্জে শনাক্ত হয়েছে ১০ জন।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, ফরিদপুর সদর, ভাঙ্গা, বোয়ালমারী, আলফাডাঙ্গা, মধুখালী ও সালথায় নতুন করে যে ২৪ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের প্রত্যেকের বাড়ি বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। আক্রান্ত সকলের শারীরিক অবস্থা যাচাই করা হচ্ছে। শানাক্তদের বাড়িতে রেখে কিংবা শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে ফরিদপুরের করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে স্থনান্তর করা হবে।

  নরসিংদীতে ৪০ লিটার চুলাইমদসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (২৭ মে ২০২০) তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় সাত হাজার ৮৪৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় আগের কিছু মিলিয়ে আট হাজার ১৫টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো দুই লাখ ৬৬ হাজার ৪৫৬টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে আরও এক হাজার ৫৪১ জনের দেহে। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ২২ শতাংশ। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ হাজার ২৯২ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও ২২ জন। ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৪৪ জনে। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩৪৬ জন এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৭ হাজার ৯২৫ জন। সুস্থতার হার ২০.৭৪ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১.৪২ শতাংশ। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানানো হয়, পুরুষ ২০ জন ও নারী দুইজন। বয়স বিশ্লেষণে জানা যায়, ০-১০ বছরের মধ্যে একজন, ২১-৩০ দুইজন, ৩১-৪০ দুইজন, ৪১-৫০ দুইজন, ৫১-৬০ সাতজন, ৬১-৭০ সাতজন, ৭১-৮০ বছরের মধ্যে একজন।

আমাদের বাণী ডট কম/২৭  মে ২০২০/সিসিপি