ঠাকুরগাঁও জেলা

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সরকারের পক্ষ থেকে ঠাকুরগাঁও জেলায় দুস্থ ও অসহায় মানুষের জন্য চাল বিতরণ করা হচ্ছে। কিন্তু প্রশাসনের নজর না থাকায় সুবিধাভোগীরা ওজনে কম দিয়ে বাকি চাল বিক্রি করছে ব্যবসায়ীদের কাছে। ১ জুন

শনিবার সদর উপজেলার আওলিয়াপুর ইউনিয়নে চাল বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আওলিয়াপুর ইউনিয়নের হজরত আলী, বাবলুর রহমান, চৈতন্য বর্মনসহ অনেকে জানান, সকাল ৯টার পর থেকে চাল বিতরণ শুরু হয়, আর শেষ হয় ১১ টার মধ্যে।
ওজন না করেই বালতিতে করে যাকে যেভাবে পেরেছে চেয়ারম্যানের লোকজন চাল দিয়ে বিদায় করেছে। যেখানে মাথাপিছু ১৫ কেজি চাল দেয়ার কথা চাল দিচ্ছে ১০ কেজি করে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, চাল বিতরণের পর আবার চেয়ারম্যানের লোকজন ব্যবসায়ীদের কাছে বস্তায় বস্তায় চাল বিক্রি করছে।
আর এসময় চাল বিক্রির ছবি ধারন করতে গেলে অনেকে দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। গরীবের চাল বিক্রি করে টাকা লুটপাট করলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয় না বলেই এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

  ছাত্রদল থেকে যুবলীগে, পদের দাপটে কামিয়েছেন কোটি কোটি টাকা

এ বিষয়ে আওলিয়াপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান জানান, আমাদের লোকজন চাল বিক্রির সাথে জড়িত নেই। কার্ডধারীরাই বাইরে গিয়ে চাল বিক্রি করছে। আমার ইউনিয়ন থেকে ১৬৫৯ কার্ডধারীর মাঝে চাল বিতরণ করা হয়েছে।

সদর উপজেলার পিআইও অফিস সূত্র জানান, দ্বিতীয় দফায় সদরের বালিয়া, আওলিয়াপুর, রহিমানপুর ও রুহিয়া ইউনিয়নে দুস্থ্যদের মাঝে চাল বিতরণ করেছে চেয়ারম্যানরা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *