ধর্ষণ

রাজধানীর মুগদায় স্কুলছাত্রী যমজ দুই বোনকে মুখে গামছা গুঁজে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ১১ বছরের যমজ দুই বোন স্থানীয় একটি স্কুলের ৪র্থ শ্রেণিতে পড়ে। গতকাল বিকালে শিশু দু’টিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত মাছের দোকানের কর্মচারী ভিকটিমদের আপন মামাতো ভাই ফরহাদ (২৩) পলাতক রয়েছে।

মুগদা থানার এসআই শেখ এনামুল করিম জানান, শিশু দু’টির পরিবার মুগদা এলাকায় থাকে। তাদের বাবা মৃত আর মা গৃহিণী। গত বুধবার বিকালে মামাতো ভাই ফরহাদ কৌশলে তাদের দু’জনকে ডেকে নিজের বাসায় নিয়ে যায়। এরপর সেখানে ভয়ভীতি দেখিয়ে ও আটকে রেখে মুখে গামছা গুজে দু’জনকে ধর্ষণ করে। ঘটনাটি কাউকে না বলার জন্য তাদেরকে ভয়ভীতি দেখায় ফরহাদ।

  কেরানীগঞ্জে মোট ৪৬৭ জনের করোনা শনাক্ত

পরে দুইবোন বাসায় গিয়ে তাদের মায়ের কাছে সব বলে দেয়। ভুক্তভোগীদের স্বজনরা জানান, তারা পাশাপাশি এলাকায় থাকেন। ঘটনাটি বুধবার শিশুদু’টির কাছ থেকে শুনতে পারেন তারা। তবে মামলা না করতে ফরহাদের বাবা তাদেরকে বিভিন্নভাবে বোঝায় এবং ভয়ভীতি দেখায়। শিশু দু’টি বড় হলে একজনকে ফরহাদের বউ হিসেবে তুলে নিবে বলে আশ্বাস দেয়। তবে তাতেও শিশুদু’টির মা রাজি না হওয়ায় গত শুক্রবার ফরহাদ ও তার পরিবার বাসা থেকে পালিয়েছে। এরপরই তারা গতকাল মুগদা থানায় গিয়ে মামলা (নং ৫৬) দায়ের করেন।

এসআই আরো জানান, মামলা দায়েরের পর শিশুদু’টিকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত ফরহাদকে গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা চলছে। হাসপাতাল থেকে প্রতিবেদন পেলে ঘটনাটি আরো পরিষ্কার হবে।