দুর্নীতি

বাংলাদেশে গত ১২ মাসে সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে সেবা গ্রহণকারীদের ২৪ শতাংশকেই ঘুষ দিতে হয়েছে। দুর্নীতিরোধে কাজ করা আন্তর্জাতিক সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের (টিআই) এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

ভারতে ৩৯ শতাংশ মানুষকে সরকারি সেবা নিতে ঘুষ দিতে হয়েছে, যা এশিয়ার মধ্যে সর্বোচ্চ। ঘুষ লেনদেনের তালিকায় এশিয়ায় সবচেয়ে নিচে রয়েছে জাপান ও মালদ্বীপ। এ দুই দেশেই মাত্র দুই শতাংশ মানুষ ঘুষ দিয়েছে।

গ্লোবাল করাপশান ব্যারোমিটার (জিসিবি) নামে টিআই এসব তথ্য তুলে ধরেছে। এশিয়ার ১৭টি দেশের ২০ হাজার মানুষের ওপর জরিপ চালিয়ে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে সংস্থাটি। এশিয়ার দুর্নীতি ও ঘুষ নিয়ে মূলত এই প্রতিবেদন। এই ১৭টি দেশের প্রতি চারজনে তিনজন মনে করে দুর্নীতি তাদের দেশে প্রধান সমস্যা। দেশগুলো হলো ইন্দোনেশিয়া, তাইওয়ান, মালদ্বীপ, ভারত, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন, জাপান, নেপাল, মালয়েশিয়া, বাংলাদেশ, মঙ্গোলিয়া, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, মিয়ানমার, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম ও শ্রীলঙ্কা। টিআই এর গবেষণা প্রতিবেদন অনুযায়ী, বাংলাদেশের ৭২ শতাংশ মানুষ মনে করে সরকারের দুর্নীতিই দেশের প্রধান সমস্যা। আর ইন্দোনেশিয়ার ৯২ শতাংশ মানুষ মনে করে দুর্নীতি তাদের দেশে প্রধান সমস্যা। এশিয়ার এই ১৭টি দেশে ভোট কেনাবেচাও সাধারণ বিষয় বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। গত পাঁচ বছরে এসব দেশে প্রতি সাতজনে একজনকে ভোট কেনার জন্য অর্থের প্রস্তাব দেওয়া হয়। দেশগুলোর ৩৮ শতাংশ মানুষ মনে করে দুর্নীতি তাদের দেশ বাড়ছে এবং ২৮ শতাংশ মানুষ মনে করে দুর্নীতি অপরিবর্তিত রয়েছে।

  দেশে ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত ৫৪৯ জন, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫৫

গত বছরের জুন থেকে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১৭টি দেশের ২০ হাজার মানুষের ওপর সমীক্ষা চালায় টিআই। সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের গত ১২ মাসে দুর্নীতি নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতার কথা জানতে চাওয়া হয়। মূলত পুলিশ, আদালত, সরকারি হাসপাতাল, পরিচয়পত্র সংগ্রহ ও অন্যান্য সেবা নিয়ে সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের প্রশ্ন করা হয়।