Shadow

সুনসান নীরবতা খুলনার শিল্পাঞ্চলে!

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

খুলনা সংবাদদাতা;  খুলনার শিল্পাঞ্চলজুড়ে এখন শুধুই সুনসান নীরবতা। সরকারি আদেশে পাটকল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় থমকে গেছে সব কার্যক্রম। এদিকে, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধে শ্রমিক পরিবারে চলছে বোবাকান্না। একদিকে মিল বন্ধ, অন্যদিকে ১২ থেকে ১৫ সপ্তাহের মজুরি বকেয়া থাকায় শ্রমিক পরিবারে বিরাজ করছে চরম হতাশা।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার খুলনাঞ্চলের ৯টিসহ দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫টি পাটকল বন্ধ করে সরকার। তবে কবে শ্রমিকদের পাওনা দেওয়া হবে তার কোনো কিছুই প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়নি। ফলে চরম হতাশায় রয়েছেন শ্রমিকরা। শিল্পাঞ্চল ঘুরে দেখা গেছে, পাটকলগুলোর হুইসেলের শব্দও আর শোনা যাচ্ছে না। শ্রমিকদের আনাগোনা না থাকায় সেখানে গড়ে ওঠা ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোও প্রাণহীন হয়ে পড়েছে। এক ধরনের ভুতুড়ে পরিবেশ বিরাজ করছে।

শ্রমিকরা জানান, ১২ থেকে ১৫ সপ্তাহ পর্যন্ত মজুরি ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ২ মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। বকেয়া মজুরি না পেলে পরিবার-পরিজন নিয়ে অনাহারে থাকতে হবে। এখন কীভাবে সংসার চলবে, সন্তানের ভরণ-পোষণ কোথা থেকে আসবে জানি না। এরকম চলতে থাকলে মরা ছাড়া কোনো উপায় নেই।

অস্থায়ী শ্রমিকরা বলেন, মিল বন্ধ হওয়ায় চরম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। কোনো সুবিধাই পাব না। সন্তানদের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যাবে। বাড়ি ফিরতে হবে খালি হাতে। মিল বন্ধের পর থেকেই অনেকে মিল এলাকা ত্যাগ করে গ্রামের বাড়ি যেতে বাধ্য হচ্ছেন।

  ৪১ সালে দেশে মাথাপিছু আয় ১৬ হাজার ডলার হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল রক্ষা সিবিএ নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক আ. হামিদ সরদার বলেন, আমরা এখন অসহায়। এই পরিস্থিতিতে এককালীন শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ ও পুনরায় মিলগুলো চালানোর জন্য দাবি জানান তিনি।

তবে খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, সরকার দেশের শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। পঞ্চাশ শতাংশ নগদ এবং বাকি অর্ধেক মুনাফাভিত্তিক সঞ্চপত্রের মাধ্যমে পরিশোধ করা হবে।

মেয়র আরও বলেন, সরকার এবং প্রাইভেট পাবলিক পার্টনারশিপ (পিপিপি) এর মাধ্যমে মিলগুলো চালু থাকবে। পিপিপি’র আওতায় আধুনিকায়ন করে এ সব পাটকলকে উৎপাদনমুখী করা হবে। যারা দক্ষ শ্রমিক তাদের দিয়েই মিলগুলো চালানো হবে। শ্রমিকদের গ্র্যাচুইটি ও প্রভিডেন্ট ফান্ডের অর্থ চাকুরি বিধি অনুযায়ী পরিশোধ করা হবে। পাশাপাশি নিধারিত হারে গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের সুবিধাও পাবেন।

আমাদের বাণী ডট কম/০৪ জুলাই  ২০২০/পিপিএম 

সৈয়দপুরের বিজ্ঞাপন

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •