বাংলাদেশ সরকার

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঢাকা;  আগামী ৩১ মে অফিস খোলার পাশাপাশি সীমিত আকারে ‘স্বল্প সংখ্যক’ যাত্রী নিয়ে সব ধরনের গণপরিবহন চলবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। আজ বুধবার রাতে এ তথ্য জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী জানান, আগামী ৩১ মে অফিস চালুর দিন থেকে সীমিত যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে। নৌপরিবহন, ট্রেনও চলবে।এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন।

করোনাভাইরাস সংকটে চলমান সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না বলে এর আগে জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘ছুটি বাড়বে না। ছুটি সীমিত হচ্ছে। আমরা প্রজ্ঞাপনটি কিছুক্ষণ আগে পেলাম। তাতে প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষর করা। অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সীমিত আকারে চালু রাখা, পাশাপাশি নাগরিক জীবনের সুরক্ষার জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।’

আগামী ৩১ থেকে অফিস চালু হলেও গণপরিবহন বন্ধ রাখার কথা জানিয়েছিলেন প্রতিমন্ত্রী। আজ বিকেলে তিনি বলেন, ‘গণপরিবহন, যাত্রীবাহী রেল ও নৌযান বন্ধ থাকবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে কর্মস্থলে যাতায়াতের জন্য যানবাহন ও ব্যক্তিগত হালকা যানবাহন চালু থাকবে।’

৩১ মে থেকে অফিস চালুর ঘোষনা দেওয়া হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। তবে অনলাইন এবং ডিসটেন্স লার্নিং কোর্স চালু থাকবে। আর সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো নিজ ব্যবস্থাপনায় সীমিত আকারে চলবে। সেক্ষেত্রে বয়স্ক ও অসুস্থ লোকজন অফিসে যাবে না, সন্তান সম্ভবা নারী অফিসে যাবে না।’

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ২৩ মার্চ সরকার প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। পরে দ্বিতীয় দফায় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত, তৃতীয় দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ও চতুর্থ দফায় ৫ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি বর্ধিত করা হয়। এরপরও পরিস্থিতির উন্নত না হওয়ায় পঞ্চম দফায় ১৬ মে এবং সর্বশেষ ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি বৃদ্ধি করে সরকার।

  কর্মস্থলে শিক্ষকের নিরাপত্তা বিঘ্নিতকারীদের কোন ছাড় নয়: শিক্ষা উপমন্ত্রী

স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (২৭ মে ২০২০) তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় সাত হাজার ৮৪৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় আগের কিছু মিলিয়ে আট হাজার ১৫টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো দুই লাখ ৬৬ হাজার ৪৫৬টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে আরও এক হাজার ৫৪১ জনের দেহে। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ২২ শতাংশ। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮ হাজার ২৯২ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও ২২ জন। ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৪৪ জনে। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩৪৬ জন এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৭ হাজার ৯২৫ জন। সুস্থতার হার ২০.৭৪ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১.৪২ শতাংশ। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানানো হয়, পুরুষ ২০ জন ও নারী দুইজন। বয়স বিশ্লেষণে জানা যায়, ০-১০ বছরের মধ্যে একজন, ২১-৩০ দুইজন, ৩১-৪০ দুইজন, ৪১-৫০ দুইজন, ৫১-৬০ সাতজন, ৬১-৭০ সাতজন, ৭১-৮০ বছরের মধ্যে একজন।

আমাদের বাণী ডট কম/২৭  মে ২০২০/সিসিপি