সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

গাইবান্ধা সংবাদদাতা; জেলার  সাদুল্লাপুরে প্রসব বেদনা নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসেও কতৃপক্ষ অবেহলাকে সয্য করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গেটেই প্রসব ব্যাথার সাথে যুদ্ধ করে সন্তানকে পৃথিবীর আলো দেখালেন গর্ভবতী মা।

আজ ঈদের মত পবিত্র দিনে (২৫ মে) আনন্দের মুহূতে সন্ধ্যার দিকে সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গেটে ছেলে সন্তান জন্ম দেন ঐ গর্ভবতী মা।

গর্ভবতী যুদ্ধা মা উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের জামুডাঙ্গা (ভাঙ্গা বাঁধের মাথা) গ্রামের বাদশা মিয়ার স্ত্রী রাশেদা বেগম(৫০)

বাড়িতে প্রসব বেদনা শুরু হলে রাশেদা বেগমকে সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে তার স্বজনরা। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসকদের ভর্তি করার জন্য অনুরোধ করলেও তাতে তারা কর্ণপাত না করায় হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালের উদ্দেশ্যে যাত্রা করলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গেটেই স্হানীয়দের সহযোগিতায় রাশেদা বেগম সন্তান প্রসব করে। গর্ভবতীর স্বজনদের দাবি ডাক্তারের অবহেলার কারণেই এমনটি হয়েছে।

  প্রধানমন্ত্রীর দুই মেয়াদে সরকারি চাকরি পেয়েছেন ৭ লাখ ২৮ হাজার জন

সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক রিপন কুমার বর্মণ জানান, গর্ভবর্তীর বয়স বেশী হওয়ায় ভর্তি না করে অন্যত্র ভর্তির পরামর্শ দেয়া হয়েছিল।কিন্তু পরে হাসপাতালের গেটেই বাচ্চা প্রসব করে।পরবর্তীতে বাচ্চার অবস্থা ভালো থাকলেও মায়ের অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে কারণে রংপুর মেডিক্যাল কলেজে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা কোন অবহেলা করিনি। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হতে পারে এমন আশঙ্কায় অন্যত্র পাঠিয়ে দেয়া হয়েছিল।

আমাদের বাণী ডট কম/২৫ মে ২০২০/ডিডিএ