কুষ্টিয়ার  খোকসা উপজেলার হিন্দুসম্প্রদায়ের মানুষ দিন ব্যাপি হলি খেলায় মেতে উঠেছিল।দোলযাত্রা একটি হিন্দু বৈষ্ণব উৎসব। ফাল্গুনী পূর্ণিমা বা দোলপূর্ণিমার দিন বৃন্দাবনে শ্রীকৃষ্ণ আবির বা গুলাল নিয়ে রাধিকা ও অন্যান্য গোপীগণের সাথে রং খেলায় মেতেছিলেন। সেই ঘটনা থেকেই রঙ খেলার উৎপত্তি হয়।

এই পূর্ণিমা তিথিতেই চৈতন্য মহাপ্রভুর জন্ম বলে একে গৌরপূর্ণিমা নামেও অভিহিত করা হয় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম উৎসব দোল।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রঙে রঙে ও আনন্দে মুখরিত হয়েছিল খোকসার বিভিন্ন মন্দির প্রাঙ্গনে।

সনাতন ধর্মাবলম্বী সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য এটা ধর্মীয় উৎসব হলেও জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে রঙ খেলায় মেতেছিল খোকসার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এসময় একে অপরকে নানা আবিরের রঙে রাঙিয়ে দেন। এছাড়াও খোকসার বিভিন্ন মন্দির ও মঠেও ছিল একই আয়োজন।

  মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সিদ্দিকুল ইসলাম এর ইন্তেকাল

মন্দির, বাস-বাড়িতে সকাল থেকেই বিভিন্ন রঙের অর্ঘ্য নিয়ে নানা বয়সীরা রঙ খেলা করেন। হলি উৎসবের আনন্দের অনুভূতি জানতে চাইলে খোকসা এইচ এ এইচ আর এর সহসভাপতি রন্জন ভৌমিক বলেন, “ধর্ম যার যার উৎসব সবার” ভগবান গৌড়াঙ্গ মহাপ্রভুর আর্বিভাব উৎসব ও দোলযাএায় সবাইকে কৃষ্ণ প্রীতি ও শুভেচ্ছা।

মহাপ্রভু কলি যুগে এসে সবাইকে কৃষ্ণনামে উদ্বুদ্ভ করেছেন। আমরা সবাই এই আনন্দের অংশীদারি, হিন্দু মুসলিম, বৌদ্ধ খ্রিষ্টান নির্বিশেষে।

এই উৎসবটিকে আমরা ধর্মীয় উৎসব হিসেবে নয় বরং সার্বজনীন উৎসব হিসেবে নিয়েছি। এই উৎসবে খোকসা বাসির সবাইকে ধন্যবাদ।

আমাদের বাণী-আ.আ.হ/মৃধা

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *