বদলে দিয়েছে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার চিত্র

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ৮নং রহিমানপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ,কার্ড ধারীর নাম সফিকুল, পিতা-আব্দুর রহমান, যাহার কার্ড নং-২৭৩, মোছাঃ রেজিয়া বেগম, পিতা- মৃত আব্দুর গফুর, যাহার কার্ড নং- ১৯০। মোঃ আব্দুল লতিফ, পিতা- মোঃ নসির আলী, যাহার কার্ড নং-২০৫। আমিরুল হক, পিতা- সোলেমান আলী, কার্ডটি ডিলারের কাছে জমা রয়েছে। এই ৫ জন হতদরিদ্র সুবিধা ভোগী চাউল না পেয়ে ডিলার মোঃ দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী (বাদল) বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। ০৮ নং রহিমানপুর, ০২ নং ওয়ার্ড সে একজন খাদ্য মন্ত্রণালয়, খাদ্য অধিদপ্তর, খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি ডিলার।

এই ডিলারের কাছে সুবিধা ভোগী কার্ড ধারীরা বহু ঘুরাঘুরি করে চাউল না পেয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, ০২/০৪/১৯ ইং তারিখে একটি অভিযোগ দাখিল করেন।

  সব ধর্মেই সৃষ্টিকর্তার বিশেষ অবদান রয়েছে: বিচারপতি সৌমেন্দ্র সরকার

সরজমিনে রহিমানপুর ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ডের ডিলারের কাছে জানতে চাওয়া হলে মোঃ দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী (বাদল) তিনি জানান, তাদের ৫ জনের চাউল আমার গুদামে এখনো রয়েছে, সুবিধা ভোগীরা কার্ড নিয়ে আসলে চাউল দিয়ে দেওয়া হবে। কার্ড ধারীরা অভিযোগ দিয়েছে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এর বরাবর।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিপ্লব কুমার সিংহ অভিযোগটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান ডিলারকে ৫ জন কার্ডধারীকে পুনরায় চাউল দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আমাদের বাণী-আ.আ.হ/মৃধা

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *