সারাদেশ

শহীদ স্মরণে লাখো প্রদীপ জ্বাললো বগুড়া

বগুড়ায় লাখো প্রদীপ জ্বালিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণ করা হলো। পঁচিশে মার্চ সন্ধ্যায় শহরের ৪টি স্থানসহ জেলার ১১টি উপজেলায় এক সঙ্গে মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের স্মরণ করা হয়। ‘লাখো শহীদ স্মরণে, লাখো প্রদীপ জ্বালো’ নামে এই কর্মসূচীতে জেলাজুড়ে সর্বস্তরের লক্ষাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেন।

বগুড়া জেলা পুলিশ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট এবং পেশাজীবী ও শ্রমজীবী সংগঠন ব্যতিক্রমী ওই কর্মসূচীর আয়োজন করে। পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মোঃ মোখলেসুর রহমান সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে শহরের আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে মোমবাতি জ্বালানোর মাধ্যমে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন।

এরপর পর্যায়ক্রমে ওই মাঠসহ অন্যান্য স্থানে উপস্থিত লাখো মানুষ তাদের হাতের মোমবাতি জ্বালান। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী প্রত্যেকে মোমবাতি নিয়ে দশ মিনিট দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় প্রজেক্টরের মাধ্যমে ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে রাজারবাগ পুলিশ লাইনে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর নৃসংতার ছবি ও বর্ণনা তুলে ধরা হয়।

কর্মসূচীর উদ্বোধন করতে গিয়ে পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মোঃ মোখলেসুর রহমান ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত পাকিস্তানকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘পাকিস্তান এসে দেখে যাও কিভাবে সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষকে একত্রে নিয়ে বসবাস করতে হয়।’ তিনি বলেন, ‘একাত্তরে যেমন বাঙালি পুলিশের রাইফেল গর্জে উঠেছিল এবারও তেমন জঙ্গী দমনে বাংলাদেশ পুলিশের রাইফেল গর্জে উঠেছে। বাংলাদেশ জিতেছে বাংলাদেশ জিতবেই।’ আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন বগুড়ার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মেদ, পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক জেলা কমা-া রুহুল আমি বাবলু ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি তৌফিক হাসান ময়না।

স্কুল কলেজ পড়ুয়া অসংখ্য ছেলেমেয়েরাও এই অনুষ্ঠানে অংশ নেয়। তাদেরই একজন বগুড়া সেন্ট্রাল হাই স্কুলের ৭ম শ্রেণীর ছাত্র রাইসুল ইসলাম। সে জানায়, এই প্রথম লাখো মানুষের সাথে লাখো শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পেরে মনের ভেতর অন্য রকম ভালো লাগা কাজ করছে। ইয়াকুবিয়া হাই স্কুলের দশম শ্রেনীর ছাত্রী নুসরাত জাহান জানায়, শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পেরে খুব আনন্দ বোধ করছি।

বগুড়ায় পুলিশের মিডিয়া বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, পঁচিশে মার্চের কাল রাতে পুলিশ বাহিনীর সশস্ত্র প্রতিরোধের সেই গৌরবোজ্জ্বল অবদান এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মত্যাগের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই এ ধরনের আয়োজন। তিনি বলেন, বগুড়া শহরের আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠ ছাড়াও পাশের জিলা স্কুল, মাটিডালি সদর উপজেলা চত্বর, বেসরকারি সংস্থা টিএমএএস চত্বরসহ জেলার বাকি ১১টি উপজেলা সদরে স্কুল-কলেজ ও খেলার মাঠে প্রদীপ জ্বালো কর্মসূচী পালন করা হয়।

আমাদের বাণী-আ.আ.হ/মৃধা

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]
Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close