Shadow

একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন মহিলা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলার ফতুল্লার ভূইগড় এলাকায় দারুল হুদা আল ইসলামী মহিলা মাদ্রাসার একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগে মুফতি মোস্তাফিজুর রহমানকে (২৯) আটক করেছে র‌্যাব। তিনি ওই প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ (বড় হুজুর)।

শনিবার (২৭ জুলাই) ভুক্তভোগী ছাত্রীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মাদ্রাসাটিতে অভিযান চালায় র‌্যাব-১১ এর একটি টিম। অভিযোগের প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়ায় তাকে আটক করে র‌্যাব।

অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমান নেত্রকোনা জেলার লক্ষীগঞ্জের কাওয়ালি কোনা গ্রামের মো. ওয়াজেদ আলীর ছেলে। গত ছয় বছর যাবৎ তিনি মাদ্রাসাটি পরিচালনা করছেন এবং মাদ্রাসায় পরিবার নিয়েই থাকতেন।

র‌্যাব-১১ সিপিএসসি’র কোম্পানি কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুস সাকিব জানান, দারুল হুদা মহিলা মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও বড় হুজুর মোস্তাফিজুর রহমান একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানি করেছেন এমন একটি অভিযোগ আমরা পাই। অভিযোগের তদন্তে এসে আমরা প্রাথমিকভাবে অভিযোগের সত্যতা পাই। আমরা চারজন ছাত্রীর ব্যাপারে জানতে পেরেছি যাদের তিনি যৌন হয়রানি ও শ্লীলতাহানি করেছেন। ভিক্টিমদের বয়স ১০-১৬ বছরের মধ্যে। একই সাথে কিছু মোবাইল রেকর্ড পেয়েছি যার ভিত্তিতে ঘটনার সত্যতা পাই। আমরা তাকে আটক করেছি। আরও তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

  কুষ্টিয়ায় একদিনেই ১৬ জনের করোনা শনাক্ত, মোট ৯০

তিনি বলেন, এর আগেও মোস্তাফিজুরের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠলে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়া হয়। তবে এবার ভুক্তভোগীরা সরাসরি র‌্যাবের সাথে যোগাযোগ করলে তাকে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান র‌্যাবের উর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা।

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *