Shadow

ছেলে ধরা গুজবে গণপিটুনির শিকার মিনু মিয়াও চলে গেলেন

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

‘ছেলেধরা’ সন্দেহে গণপিটুনির শিকার ভূঞাপুরের ভ্যানচালক মিনু মিয়াও চলে গেলেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সোমবার সকাল ১০টার দিকে মারা যান তিনি। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রজিউন)। গণপিটুনির শিকার হওয়ার পর টানা ৯দিন সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলার টেপিবাড়ী গ্রামে বাড়ি মিনু মিয়ার। জন্মের কিছুদিন পরেই মা হারা হন তিনি। এরপর থেকে স্থানীয়দের কাছেই বেড়ে ওঠেন তিনি। বড় হয়ে ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। তার ছয় বছরের ছেলে ও ছয়মাসের গর্ভবতী স্ত্রী রয়েছেন। মিনু মিয়ার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সম্প্রতি বন্যায় মিনুর বসতভিটায় পানি প্রবেশ করে। এছাড়া বাঁধ ভেঙে স্থানীয় সকল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হলে কর্মহীন হয়ে পড়েন তিনি। সে কারণে মাছ ধরে পরিবারের মুখে খাবার তুলে দিতে টাকা ধার করে জাল কিনতে কালিহাতীর সয়া হাটে যান তিনি। আর সেখানেই ছেলে ধরা সন্দেহে সরল মিনুকে অমানবিক গণপিটুনির শিকার হতে হয়।

  ফেনীতে করোনায় মোট ৬ জনের মৃত্যু, উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু ১০

পরে নির্যাতনকারীরা মৃত ভেবে ফেলে গেলে পুলিশ এসে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ৯ দিন পর সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকাল ১০টার দিকে মারা যান হতভাগা মিনু মিয়া।

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *