শিক্ষা মন্ত্রণালয়

ডেস্ক রিপোর্ট, ঢাকা;  বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আসছে জুন মাসেও বন্ধ থাকছে। গতকাল বৃহস্পতিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা আদেশে ১৫ জুন পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার কথা বলা হলেও শিক্ষাসংশ্নিষ্ট সরকারের দুই মন্ত্রণালয়ের নীতিনির্ধারকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জুন মাসজুড়েই প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা স্তরের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।

  • এই দুই মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলেই কেবল বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে। জীবনযাত্রার সবকিছু স্বাভাবিক হওয়ার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবে। এগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সবার আগে; আর খুলে দেওয়া হবে সবার শেষে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন গতকাল বলেন, সারাদেশের ৬৫ হাজার ৬২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ জুন পর্যন্ত ঈদুল ফিতরের ছুটি রয়েছে।

  • এরই মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কোনোভাবেই খোলা যাবে না বলে আদেশ দিয়েছে। সে আদেশ আমরা পালন করব। ১৫ জুনের পর পরিস্থিতি কোন দিকে যায়, তা দেখে সিদ্ধান্ত হবে। কারণ করোনাভাইরাসের যে সংক্রমণ পরিস্থিতি, তাতে পুরো জুন মাসটা মনে হচ্ছে টার্নিং পয়েন্ট। তাই এ মাসে স্কুলে খুলে দেওয়ার সম্ভাবনা কম।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, আপাতত ১৫ জুন পর্যন্ত স্কুল-কলেজ ছুটিই থাকছে। তারপর কী হবে সে প্রসঙ্গে এটুকু বলতে পারি, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি হতে পারে- এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে না।

শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, তারা মনে করেন, এ মুহূর্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হলেও অভিভাবকরা সন্তানদের বর্তমান পরিস্থিতিতে কিছুতেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠাবেন না।

  • মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা গতকালের আদেশে শর্তসাপেক্ষে সরকারি-বেসরকারি অফিস-আদালত এবং শিল্প-কলকারখানা সীমিত আকারে খোলার কথা বলা হলেও স্কুল-কলেজসহ সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি ১৫ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। আর ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ আছে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। আড়াই মাস ধরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সব বন্ধ। আর ২৬ মার্চ থেকে দেশে সাধারণ ছুটি চলছে। গতকালের আদেশসহ মোট আট দফায় ছুটি বাড়ানো হলো।
  আসন্ন বাজেটেই জাতীয়করণ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিকট শিক্ষকের খোলা চিঠি

স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনের সর্বশেষ (২৭ মে ২০২০) তথ্য অনুযায়ী, দেশে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৯টি ল্যাবের মধ্যে নমুনা সংগ্রহ করেছি ৯ হাজার ২৬৭টি। পূর্বেরসহ নমুনা পরীক্ষা করেছি ৯ হাজার ৩১০টি। এই সংগৃহীত নমুনা থেকে শনাক্ত রোগী পেয়েছি ২ হাজার ২৯ জন। এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে শনাক্ত হয়েছে ৪০ হাজার ৩২১ জন। শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৭৯ শতাংশ।’ গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেছে ১৫ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু দাঁড়ালো ৫৫৯ জন। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৯ শতাংশ। নতুন করে সুস্থ হয়েছে ৫০০ জন। মোট সুস্থ হয়েছে ৮ হাজার ৪২৫ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ২০ দশমিক ৮৯ শতাংশ।’

আমাদের বাণী ডট কম/২৯  মে ২০২০/সিসিপি