নিজস্ব সংবাদদাতা, ঢাকাঃ  হেফাজত ইসলামের সহিংস আন্দোলনের সমালোচনা করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক বলেছেন, ধর্মের নাম নিয়ে এক শ্রেণির মানুষ অত্যাচার করে থাকে। যা বিগত মাসেও আমরা দেখেছি, কিভাবে তাণ্ডব চালিয়েছিল। তারা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলের জন্য ধর্মের নাম ব্যবহার করে থাকে। ধর্মের নাম নিয়ে মিথ্যাচার করে এই দেশে। আপনারা দেখেছেন তারা কীভাবে তাণ্ডব চালিয়েছিল। তারা ধর্মের নামে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলের পরিকল্পনা করেছিল।

রাজধানীল কল্যানপুর গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ফিরোজ-মাজিরা মিলনায়তনে বুধবার এক স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আজকে অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তে যে দেশ সৃষ্টি হয়েছে সেই দেশে স্বাধীনতাবিরোধী প্রেতাত্মারা এই দেশে সরল ধর্মপ্রাণ মুসলমান ও এক শ্রেণির আলেমদের বিভ্রান্ত করে একটা লঙ্কাকাণ্ড ঘটাতে চেয়েছিল।

১৯৭১ সালের ২৮ এপ্রিল কল্যাণপুরের জন্য বিভীষিকাময় একটি দিন। সেদিন ভোর বেলায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও এদেশীয় কিছু সংখ্যক দালালের সহযোগিতায় পুরো কল্যাণপুর ঘিরে ফেলে। অগ্নিসংযোগ-লুটপাট ও বাঙালি হত্যায় মেতে উঠে তারা। নারী, পুরুষ ও শিশু কেউ সেদিন এই হায়েনাদের হাত থেকে রেহাই পায়নি। প্রায় তিনশত নিরপরাধ মানুষকে তারা সেদিন নির্মমভাবে হত্যা করে কল্যাণপুরে।

  দেশে আছে ছদ্মবেশী গণতন্ত্র: ফখরুল

কল্যানপুরের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও তাঁদের স্মৃতির স্মরণে ওই স্মরণসভার আয়োজন করা হয়।

মন্ত্রী বলেন, ফিরোজ-মাজিরা ফাউন্ডেশনের সভাপতি জনাব আরিফ আহমেদ চৌধুরীর অনুরোধে আমার মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে শহীদদের স্মরণে কল্যাণপুরে এটি মনুমেন্ট তৈরি করে দেব।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে ফিরোজ-মাজিরা ফাউন্ডেশনের সভাপতি জনাব আরিফ আহমেদ চৌধুরী বলেন, কল্যাণপুরের শহীদদের সম্মানে একটি মনুমেন্ট তৈরি প্রয়োজন যেখানে সকল শহীদের নাম অঙ্কিত থাকবে। মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের প্রতিশ্রুত মনুমেন্টটি অতি শীঘ্রই আমরা দেখতে পাব বলে আশা রাখছি।

আমাদেরবাণী/মৃধা