সেনবাগে অনুমোদনহীন প্লাস্টিক কারখানা পুড়ে ছাই, নিহত-১

নোয়াখালীর সেনবাগে প্লাষ্টিক কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে একজন নিহত হয়েছে ক্ষতি প্রায় এক কোটি টাকা। রোববার  দিবাগত রাত পৌনে ১২ টারদিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের ঠাকুর বাড়িতে একটি প্লাষ্টিকের কারখানায় ভয়াবহ এক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় মোঃ ইসমাইল (৩৫)নামের এক ব্যাক্তি আগুনে পুড়েঁ অঙ্গার হয়ে মারা গেছে। নিহত ইসমাইলের বাড়ি নোয়াখালী সদর উপজেলার সোনাপুরের সুল্লুকিয়া গ্রামে। সে ওই গ্রামের আবুল হাশেমের ছেলে।

ইসমাইল দীর্ঘ দিন ধরে সেনবাগের মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের মধ্যম মোহাম্মদপুর গ্রামের নারায়ন চক্রবর্তী( ঠাকুর বাড়ির) সুখ ঠাকুরের ছেলে নারায়ণ চক্রবত্তির ঐ প্লাষ্টিকের কারখানায় শ্রমিক হিসাবে কাজ করতো। ঘটনার সময় সে ওই ফ্যাক্টরিতে গুমিয়ে ছিল। এই অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে রোববার ৩১ মার্চ ২০১৯ দিবাগত রাত পৌনে ১২ টারদিকে।

খবর পেয়ে চৌমুহনী ও নোয়াখালী থেকে ফায়ার সার্ভিস( দমকল) বাহিনীর স্টেশনের ফায়ার মাষ্টার মাহবুবুর রহমানের নেতৃত্বে দুইটি ইউনিট সেনবাগ থানার সেকেন্ড অফিসার সাইফুল ইসলাম ও এসআই সহিদুল আলমেন নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ও এলাকাবাসী সহযোগিতায় ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। কিন্তু এর আগেই ওই কারখানাটি পুড়ে সম্পুন্ন ছাঁই হয়ে যায়। এতে প্রায় কোটি টাকার সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী কারখানা মালিকের।

  একটু বৃষ্টি হলেই ছাতা মাথায় নিয়ে ক্লাস করতে হয় প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের

এসময় ফায়ার সার্ভিস ও সেনবাগ থানা পুলিশ অগ্নিকান্ডের স্থলে তল্লাশি করে ইসমাইল নামে ওই শ্রমিকের পুড়ে যাওয়া লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

খবর পেয়ে নোয়াখালী ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক হুমায়ুন কবির ও সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদশর্ন করে।

স্থানীয় লোকজন জানায়,  দীর্ঘ দিন ধরে কোন ধরনের বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই বাড়ির ভিতরে ওই কারখানাটি পরিচালনা করে আসছিলো,অগ্নিকান্ডের সময় ওই এলাকায় তখন বিদুৎ ছিলো।

আমাদের বাণী-আ.আ.হ/মৃধা

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *