নোয়াখালী জেলার সেনবাগ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সারা দেশের ন্যায় পালিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস।

২৬শে মার্চ তারিখে পালিত হয় বাংলাদেশের জাতীয় দিবস। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে (কাল রাত) তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান,বর্তমানের বাংলাদেশের জনগণ আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের স্বাধীনতার সংগ্রাম শুরু করে। ১৯৭২সালের ২২ জানুয়ারি প্রকাশিত এক প্রজ্ঞাপনে এই দিনটিকে বাংলাদেশে জাতীয় দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয় এবং সরকারিভাবে এ দিনটিতে ছুটি ঘোষণা করা হয়।সেই থেকে বাংলাদেশ এবং বিশ্বের নানা দেশে বাংলাদেশী অভিবাসী ও প্রবাসী বাংলাদেশীরা ছাব্বিশে মার্চ স্বাধীনতা দিবসও জাতীয় দিবস পালন করছে।

সেনবাগ উপজেলা স্মৃতিস্তম্ভে ইউ এন ও মিনাহাজুর রহমান,ওসি মিজানু রহমান সহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্যদিয়ে দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। মুক্তি যুদ্ধে শহীদ বীর সন্তানদের স্মৃতিস্তম্ভে ফুলের শ্রদ্ধা জানায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ , যুবলীগ সহ সকল শাখা সংগঠন।সেনবাগ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ,সেনবাগ প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ সহ নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলের শ্রদ্ধা জানানো হয়।

টেলিভিশনের পর্দায় মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সম্প্রচারিত জাতীয় সঙ্গীতে অংশ নেয় সেনবাগ পাইলট মাঠে উপস্থিত সকল পেশাজীবি, সর্বস্তরের জনগন ও শিক্ষার্থীরা।

জাতীয় সংগীতেরর মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন প্রধান অতিথি। শান্তির পায়রা, বেলুন উড়িয়ে মাঠের পর্বের উদ্ভোদন করেন সেনবাগ সোনাইমুড়ী আংশিক আসনের এম পি প্রধান অতিথি মোরশেদ আলম,অনুষ্টান সভাপতি ইউ এন ও মিনহাজুর রহমান। সাথে ছিলেন ওসি মিজানুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এস এম আব্দুল ওহাব,মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের।

  ঠাকুরগাঁওয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সহ আটক ৬

কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন অতিথিরা।কুচকাওয়াজের নেতৃত্ব দেন সাব ইন্সপেক্টর তাপস চন্দ্র মিত্র।ধারা বর্ণনায় ছিলেন সেনবাগ মডেল প্রাথিমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবুল বাসার ও ম্যাডাম সালমা।

সেনবাগের মুক্তিযোদ্ধা সংসদের প্রায় সকল সদস্যদের সাথে মাঠে আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, ছাত্র ছাত্রী,অভিভাবক, বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিক, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন দর্শকমঞ্চ ও মাঠের চারপাশে।

পুলিশ,আনসার,ক্যাডেট,স্কাউটদের সম্মিলিত কুচকাওয়াজের পর।শিক্ষার্থীরা নিজস্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষে মনোমুগ্ধকর শারীরিক কসরত প্রদর্শন করে ।

মুক্তিযুদ্ধের আলোচিত্র প্রদর্শনী ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংর্ধনা ছিলো সেনবাগ পৌরডিটোরিয়ামে। মুক্তিযোদ্ধাদের র‍্যালি ছিলো অন্যতম আকর্ষন।

মাঠে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, যেমন খুশি তেমন সাজ, পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সহ নানা আয়োজনে সেনবাগে স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবসের প্রথম পর্ব সমাপ্তি হয়।

দ্বিতীয় পর্ব সন্ধ্যায় পৌর অডিটোরিয়ামে সেনবাগ উপজেলা প্রশাসন এর আয়োজনে সেনবাগ শিল্পকলা একাডেমির পরিবেশনায় রয়েছে কবিতা আবৃতি,নাটিকা,দেশের গান,নৃত্যের সমন্বয়ে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আমাদের বাণী-আ.আ.হ/মৃধা

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *