Shadow

তালতলীতে করোনায় ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যু

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বরগুনা জেলা সংবাদদাতা; জেলার  তালতলী উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়ে এক ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যু হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই ২০২০)  সকাল ১১টার দিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

তিনি উপজেলার কড়ইবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন আকন (৬৮)।

পরিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ৭ জুন আলতাফ হোসেন আকন জ্বর, সর্দি-কাশি, গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্ট অনুভব করেন। তার শরীরের অবস্থার অবনতি হলে ১২ জুন তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। ১৩ জুন উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তার নমুনা সংগ্রহ করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে (করোনা ল্যাব) পাঠিয়ে দেয়। তার শরীরের অবস্থার অবনতি হলে ওইদিনই তাকে রবিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

১৬ জুন তার করোনা রিপোর্ট আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পজিটিভ আসে। এরপর তার পরিবারের চারজনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়। তাদেরও করোনা পজেটিভ আসে। পরিবারের পাঁচজনকেই বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যঅল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ আকন ছাড়া পরিবারর অন্য সবাই সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন।

কিন্তু চেয়ারম্যান আলতাফ আকনের অবস্থার কোনো পরিবর্তন হয়নি। পরে তাকে ওই হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। এক মাস চারদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। উল্লেখ্য ২০১৭ সালে কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যার হিসেবে তিনি বিজয়ী হন।

বরগুনার সিভিল সার্জন ডা: হুমায়ুন শাহীন খান বলেন, তালতলী উপজেলার কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন আকনের করোনা পজেটিভ ছিল। প্রথমে তাকে আমতলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ১৩ জুন বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা গেছেন। বরগুনা জেলায় এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ৬ জন হয়ে মারা গেছেন।

  হাতীবান্ধায় আ'লীগ নেতার উদ্যোগে জীবানুনাশক স্প্রে

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনের সর্বশেষ (১৬ জুলাই ২০২০)  দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে আক্রান্ত হয়েছেন ২  হাজার ৭৩৩ জন। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৩২৩ জনে আর মোট মারা গেছেন ২ হাজার ৪৯৬ জন। ‘আমরা গত ২৪ ঘণ্টায় ৮০টি পরীক্ষাগার থেকে নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৩ হাজার ৫৪৮টি। আর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১২ হাজার ৮৮৯টি। মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৯ লাখ ৯৩ হাজার ২৯১টি। ২৪ ঘণ্টায় এই সংগৃহীত নমুনা থেকে শনাক্ত রোগী পেয়েছি ২ হাজার ৭৩৩ জন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক ২০ শতাংশ। এ পর্যন্ত শনাক্ত ১ লাখ ৯৬ হাজার ৩২৩ জন। শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৭৬ শতাংশ।’  ‘২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছে ১ হাজার ৯৪০ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ১ লাখ ৬ হাজার ৯৬৩ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৪ দশমিক ৪৮ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেছে ৩৯ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু দাঁড়ালো ২ হাজার ৪৯৬ জন। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ২৭ শতাংশ। মৃত্যু বিশ্লেষণে পুরুষ ৩১ জন এবং নারী ৮ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন পুরুষ ১ হাজার ৯৭১ জন এবং নারী ৫২৫ জন।’

আমাদের বাণী ডট কম/১৬  জুলাই ২০২০/পিপিএম


শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •