বান্দরবানে শুরু হলো বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রবারণা উৎসব সুজন ভট্টাচার্য্য, ব্যুরো প্রধান চট্টগ্রাম

প্রবারণা উৎসব
শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বান্দরবানে ফানুস উড়িয়ে মহাওয়াগ্যোয়াই পোয়ে বা প্রবারণা উৎসব শুরু হয়েছে। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী মারমাদের মঙ্গলরথ উদ্বোধন ও ফানুস ওড়ানোর মধ্য দিয়ে গতকাল শনিবার থেকে তিন দিনব্যাপী মহাওয়াগ্যোয়াই পোয়ে বা প্রবারণা উৎসব শুরু হয়েছে। বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা মারমা সন্ধ্যায় মঙ্গলপ্রদীপ জ্বালিয়ে জেলা শহরের রাজার মাঠে মঙ্গলরথ উদ্বোধন করেন।

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট (কেএসআই) ও ওয়াগ্যোয়াই উৎসব উদ্‌যাপন পরিষদের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মঙ্গলরথ উদ্বোধনের সঙ্গে সঙ্গে নানা রংয়ের শত শত ফানুস ওড়ানো হয়। আতশবাজি ও উড়ন্ত ফানুসে রঙিন হয়ে ওঠে রাতের আকাশ। পরে মারমা শিল্পীগোষ্ঠীর শিল্পীদের আয়োজনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়।

ওয়াগ্যোয়াই উৎসব উদ্‌যাপন পরিষদের ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আজ রবিবার মূল প্রবারণা বা ওয়াগ্যোয়াই।প্রতিটি বিহারে সমবেত প্রার্থনা, পঞ্চশীল গ্রহণসহ বিভিন্ন ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা হবে। সন্ধ্যায় মঙ্গলরথ খ্যাংওয়া কিয়ং (রাজবিহার) ও উজানিপাড়া বিহারে নিয়ে যাওয়া হবে। রাতে জাদিপাড়ায় হরেক রকমের পিঠা তৈরি উৎসব প্রবারণায় যোগ করবে আলাদা মাত্রা।   আগামী সোমবার মঙ্গলরথ পুণ্যার্থীদের মাঙ্গলিক পূজার জন্য জেলা শহরের বিভিন্ন সড়কে ঘুরে বেড়াবে। রাতে পূজা শেষে নির্বাণ লাভ করা উপগুপ্তের উদ্দেশে শঙ্খ নদে মঙ্গলরথ বিসর্জন দেওয়া হবে। উপজেলা শহর, পাড়া ও গ্রামে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ পরিবেশে উৎসব শুরু হয়েছে।

  তিন পার্বত্য জেলায় বৈশাখি উৎসব পালিত

বৌদ্ধধর্মাবলম্বী দের মধ্যে মারমা সম্প্রদায়ের লোকজনদের কাছে বৈশাখী পূর্ণিমা বা বুদ্ধপূর্ণিমার চেয়েও ওয়াগ্যোয়াই পোয়ে বা প্রবারণা বিশেষ গুরুত্ব বহন করে।তাই প্রবারণাকে ঘিরে তৈরী হয়  উৎসবের আমেজ। বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদ্‌যাপন করা মহা ওয়াগ্যোয়ই পোয়ে। এ সময় মারমা, ম্রো, চাকমা, খেয়াং, চাকসহ পাহাড়ি বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠী এবং বাঙালি হাজারো নারী-পুরুষের উপস্থিতিতে জাতিগোষ্ঠীর বৈচিত্র্যের মিলন উৎসবে পরিণত হয়ে থাকে।

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *