Shadow

মানিকছড়িতে বিদ্যুৎতের খুঁটি ও সংযোগ বানিজ্যের অভিযোগ

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

খাগড়াছড়ি জেলা সংবাদদাতা: জেলার মানিকছড়ি উপজেলার গুচ্ছগ্রামের মৌলভী পাড়ায় একটি মহলের বিরুদ্ধে বিদ্যুতের খুঁটি ও সংযোগ বাণিজ্যে সাধারণ জনগণ হতে লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর গণস্বাক্ষরে একটি লিখিত অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।

গত সোমবার (১৩ জুলাই) খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক বরাবর এমন একটি অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী গ্রামবাসীরা। তারা জানান, মানিকছড়ি গুচ্ছ গ্রামবাসীর নিকট হতে পরিবার প্রতি বিদ্যুতের খুঁটি বাবদ টাকা লাগবে বলে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দেয়া হয়। পরে এলাকাবাসীর কাছ থেকে বিভিন্ন অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয় মানিকছড়ির উপজেলা যুবলীগ নেতা মো. আসাদুল, শাহজাহান ও ইব্রাহীম হোসেন লিটন।

সরেজমিনে মানিকছড়ি গুচ্ছগ্রাম মৌলভী পাড়ায় গেলে, ওই এলাকার বাসিন্দা ভিক্ষুক শেফালী বেগম বলেন, আমি মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে হাত পেতে ভিক্ষা করে খাই। অনাহারে-অর্ধাহারে আমার সংসার চালানোর চেষ্টা করি। আসাদুল বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে আমার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা নিয়ে গেছে, কিন্তু এখনও কোন বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যাবস্থা করছেনা। আমি বিদ্যুৎ সংযোগ চাই অথবা আমার টাকা ফেরৎ চাই।

একই এলাকার হালিমা বেগম বলেন, যুবলীগ নেতা আসাদুল বিদ্যুৎ সংযোগ দিবে বলে আমার কাছে টাকা খুঁজে। সে জানায় বিদ্যুৎ এর কোন খুঁটি সরকারি ভাবে আসে না, টাকা দিলে খুঁটি আসে। দলীয় লোক হিসেবে আসাদুলকে বিশ্বাস করে আমিও ৩ হাজার টাকা দিয়েছি। বাকী টাকা দিলে বিদ্যুৎ সংযোগ দিবে বলে জানায়। বিদ্যুৎ এর ব্যবস্থা করতে না পারলে আমার টাকা ফেরত চাই। ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আব্দুল হাই, আব্দুল হাকিম, মোয়াজ্জেম ফকিরসহ এলাকার ভুক্তভোগীরা বলেন, আসাদুল গত কয়েক বছর আগে বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে খরচের টাকা খুঁজে। গত কয়েক বছর আগেও গ্রামের অর্ধশতাধীক পরিবার হতে ১ লক্ষ টাকা আদায় করে। অদ্যাবধি তাদের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়নি। টাকা ফেরত চাইলে এখন তারা বলে আগের হিসাব বাদ এখন নতুন করে ১০/১৫ হাজার করে টাকা দিলে বিদ্যুতের খুঁটি দেয়া হবে। না হলে পরে ২০/৩০ হাজার করে টাকা দিলেও পাবে না। এলাকাবাসীরা বলেন, আমাদের কাছ থেকে আসাদুল গং নতুন করে বিদ্যুৎ সংযোগ স্থাপনের কথা বলে টাকা আদায় করলেও বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হচ্ছে না। এ ব্যাপারে কেউ প্রতিবাদ করলে তারা নানা হুমকি ধমকী দিচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেখানে বলেছেন ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া হবে। সে ক্ষেত্রে টাকা দিয়েও বিদ্যুৎ পাচ্ছি না। আমরা এর প্রতিকার ও সু-বিচার পেতে প্রধানমন্ত্রীর সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

  সুন্দরবনের মৎস্য আহরণে দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা!

এ ব্যাপারে আসাদুল এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন ষড়যন্ত্রমূলক অভিযোগ করা হয়েছে। টাকা উত্তোলনের বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা।

আমাদের বাণী ডট কম/১৫ জুলাই ২০২০/পিপিএম

শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •