শনিবার রাতের প্রথম ম্যাচে ভায়োদোলিদকে ১-০ গোলে হারিয়ে দেয় দ্বিতীয় স্থানে থাকা অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। ফলে রাতেই শিরোপা উৎসবে মাততে হলে লেভান্তেকে হারানো ছাড়া অন্য কোনো উপায় ছিল না বার্সেলোনার সামনে। কাজটা যে মোটেই সহজ নয় ম্যাচের প্রথমার্ধেই বেশ ভালোভাবেই টের পেয়েছে স্বাগতিকরা। ম্যাচের দুই তৃতীয়াংশ সময় পার করার পরই এসেছে প্রথম ও একমাত্র গোলের দেখা।

ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুয়ে উৎসবের সব আয়োজন প্রস্তুত। জিতলেই শিরোপা জয় নিশ্চিত, এমন সহজ সমীকরণকে সামনে রেখে লেভান্তের বিপক্ষে দলের প্রাণভোমরা লিওনেল মেসিকে ছাড়াই একাদশ সাজিয়েছিলেন বার্সা কোচ আর্নেস্তো ভেলভার্দে। কিন্তু বার্সার জয় আসবে আর মেসির গোল থাকবে না সেটা যেন হয় না।

তাই দ্বিতীয়ার্ধে দলের গোল খরা কাটাতে বদলি হিসেবে নেমে পড়লেন আর্জেন্টাইন জাদুকর। মাঠে নামার ১৬ মিনিটের মাথায়ই দলকে এনে দিলেন জয়সূচক গোল। এই একমাত্র গোলের ব্যবধানেই টানা দ্বিতীয় আর সবমিলিয়ে ২৬তম লিগ শিরোপা জেতার স্বাদ পেলো কাতালান জায়ান্টরা। হিসেবটা গত পাঁচবারের ধরলে লা লিগার শিরোপা বার্সার ঘরে গেছে চারবার আর গত ১১বারের মধ্যে ৮বার!

ম্যাচ জিততে মরিয়া বার্সা দ্বিতীয়ার্ধের একদম শুরুতেই কৌতিনহোকে তুলে নিয়ে মেসিকে নামিয়ে দেন। স্বাগতিকদের মনে স্বস্তি ফেরাতে বেশি সময় নেননি অধিনায়ক। ৬২তম মিনিটে লেভান্তের ডিফেন্সে ঢুকে পড়েন দেম্বেলে, কিন্তু তিনি আর সুয়ারেজ মিলে গোলমুখে প্রবেশ করতে পারছিলেন না। কিন্তু এমন সাজানো আক্রমণ তো বৃথা যেতে দেওয়া যায় না। উপায়ন্তর না দেখে বল পেয়েই মেসির পায়ে ঠেলে দেন ভিদাল। বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ক্ষিপ্র গতির নিচু শটে জালে জড়িয়ে দেন মেসি।

[wpdevart_like_box profile_id=”https://www.facebook.com/amaderbanicom-284130558933259/” connections=”show” width=”300″ height=”550″ header=”small” cover_photo=”show” locale=”en_US”]

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।