Shadow

মতামত

স্বাস্থ্য মহাপরিচালক পদে এলেন এক ‘ধর্মগুরু’

স্বাস্থ্য মহাপরিচালক পদে এলেন এক ‘ধর্মগুরু’

মতামত
ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা;  করোনা আমাদের স্বাস্থ্য খাতকে সম্পূর্ণই উদোম করে দিয়েছে। দুর্নীতি, সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম্য, সমন্বয়হীনতা, প্রতারণা, সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় জালিয়াতি এই সবই প্রকটভাবে দৃশ্যমান হয়েছে এই সময়। মানুষ মূল্য দিয়েছে জীবন আর জীবিকার বিনিময়ে। করোনা নিয়েও যে হাজার কোটি টাকার ব্যবসা ফাঁদা যায় সেটা আমরা এইবার বিশ্বকে দেখিয়ে দিলাম। আমাদের ভুয়া করোনা রিপোর্ট শিরোনাম হলো CNN, New York Times, Al jazeera, Guardian এর মতো পত্রিকায়। এই ভুয়া রিপোর্টের কারণে রিজেন্ট হাসপাতাল, জেকেজিসহ বেশকিছু প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ধরা হলো, আনা হলো আইনের আওতায়। সরানো হলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে। যদিও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বয়ান মতে উপরের নির্দেশেই তারা এই কাজ করেছে। তারপরও রিজেন্টের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বয়ং উপস্থিত থেকেও রয়ে গেলেন ধরাছোঁয়ার বাইরে। আসলেন নতুন মহাপরিচ
বাংলাদেশী সংস্কৃতি ও রাজনৈতিক সংকট

বাংলাদেশী সংস্কৃতি ও রাজনৈতিক সংকট

মতামত
নূরুন্নবী সবুজ; একজন রাজনৈতিক তাত্ত্বিক হবার জন্য বই পড়াই যতেষ্ট। আর এসব বইয়ের তালিকায় বিদেশী বইয়ের তালিকার প্রাধান্য থাকে অনেকের কাছেই। বিদেশী সিনেমা বা গানও অনেক রাজনীতিবীদের কাছে কদর পায়। রাজনীতিবীদদের ভিতর অন্য দেশের সাহিত্য ও সংস্কৃতির ব্যাপক চর্চার ফলে দেশীয় চিন্তা ও কাজে বিশেষ গলদ আসে। এমন কাজগুলো রাজনীতিবীদকে বাংলাদেশীদের মন বুঝতে ও সে অনুযায়ী কাজ করে একতা তৈরী করতে বাধার তৈরী করে। কেন একজন কৃষক সারাদিনের কাজ শেষে আইটেম গান শুনে, মান্না, সাকিব খান বা সালমান শাহ-এর সিনেমা দেখে তা বুঝার জন্য বাংলা সিনেমা দেখার প্রয়োজনীয়তা অস্বিকার করা যায় না। তাদের মত করে তাদের কথা বলার জন্য তাদের রুচির সাথে সখ্যতা থাকতে হবে। এই সখ্যতা একতা তৈরীর জন্য প্রয়োজন। সংস্কৃতির সুস্থতা ছাড়া রাজনীতির সুস্থতা লাভ করা দূরহ বলা যায়। রাজনীতিবীদদের ভেতর বাংলাদেশী সংস্কৃতির সাথে সম্পর্ক কমে যাওয়ায় মানুষের সাথে সম্প
আইনজীবী সনদ অধিকারের দাবিতে শিক্ষানবিশদের ন্যায্যতা ও করণীয়

আইনজীবী সনদ অধিকারের দাবিতে শিক্ষানবিশদের ন্যায্যতা ও করণীয়

মতামত
সুজন বিপ্লব;  প্রখ্যাত মনীষী আব্রাহাম লিঙ্কন-এর উক্তি,”আপনি যদি আইনজীবী হওয়ার জন্য মনস্হির করেন, তাহলে ধরে নেন এর অর্ধেক হয়ে গেছে।” বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের কর্মকাণ্ডে সম্পূর্ণ বিপরীত বিষয় আমরা দেখছি। এলএল.বি. স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করার পরেও ইচ্ছা পোষণ করলেই আইজীবী হওয়ার সুযোগ নেই। শিক্ষানবিশদেরকে আইনজীবী সনদের অধিকার থেকে বার কাউন্সিল বঞ্চিত করে যাচ্ছে। আইনজীবী তালিকাভুক্তি পরীক্ষার মারপ্যাঁচে ৮০ ভাগ আইন শিক্ষার্থী আইনপেশায় যুক্ত হতে পারেনা। আইনের ছাত্রদের আইনজীবী হওয়া স্বাভাবিক, এটাই প্রত্যাশিত।এমবিবিএস পাশ করে ডাক্তারি না করা যেমন অনাকাঙ্ক্ষিত, তেমনি ‘ল’গ্রাজুয়েটদের ক্ষেত্রেও বেমানান লাগে। এদেশে আইন শাস্ত্রে স্নাতকধারীদের সেবামূলক বৃত্তি বা আইন ব্যবসায় প্রবেশে অনুমতিপত্রের জন্য নানা প্রতিবন্ধকতায় বেকারত্বকাল প্রলম্বিত হচ্ছে। আইন পেশার নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বার কাউন্সিলের অযৌক্তিক
মাগুরায় স্বাস্থ্যসেবায় নজর দিন

মাগুরায় স্বাস্থ্যসেবায় নজর দিন

মতামত
মো সোহেল মুন্সী; বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে স্পষ্ট হয়ে উঠেছে স্বাস্থ্য খাতে এতদিন কতটা কম মনোযোগ দেয়া হয়েছে এবং কত বড় ধরনের সংস্কার এক্ষেত্রে দরকার।এই করোনা সব সেক্টরকে নগ্ন ভাবে দেশবাসীর সামনে নিয়ে এসেছে। এই অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেট ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার মধ্যে ৭.২ শতাংশ অর্থাৎ ২৯ হাজার কোটি টাকার কিছু বেশি অর্থ স্বাস্থ্য খাতে দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। এটাই যথেষ্ট? তর্কের খাতিরে ধরে নিলাম এটাই যথেষ্ট। কিন্তু এর সুফল দেশবাসি কবে পাবে?? "জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. লেলিন চৌধুরী বলছেন,দেশে পুরো স্বাস্থ্য ব্যবস্থাই যে ভেঙে পড়েছে, এছাড়া অন্যান্য যে স্বাস্থ্য সমস্যাগুলো রয়েছে সেগুলো যাতে না হয় তার জন্য প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা যে নেয়া হয় না, সেসব ব্যাপারে তেমন কোন পরিকল্পনা সেভাবে নেই। বিষয়টি ব্যাখ্যা করে তিনি বলছেন, "ধরুন নিরাপদ খাবার পানি যদি নিশ্চিত করা হয়, তাহলে
আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্যই পশু কুরবানি

আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্যই পশু কুরবানি

মতামত
কাজী আবু মোহাম্মদ খালেদ নিজাম; কুরবানি একটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদাত। এই ইবাদাতে কেবল আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনই মুখ্য। সামর্থ্যবান সকল মুসলমানের ওপর কুরবানি করা ওয়াজিব। সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও কুরবানি না করার ব্যাপারে রাসূল (সা.) কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। নিষেধ করেছেন ঈদগাহের কাছে যেতে। এর মাধ্যমে বুঝা যায় সামর্থ্যবানদের কুরবানি করা কত গুরুত্বপূর্ণ। হালাল উপার্জন দ্বারাই কুরবানি করা আবশ্যক। নয়তো তা আল্লাহর দরবারে কবুল হওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে। মহান রাব্বুল আলামীনের নৈকট্য অর্জন ও তাঁর ইবাদাতের জন্য পশু-জবেহ করাকে কুরবানি বলা হয়। এবার মহামারী করোনা কালে কুরবানীর দিন আমাদের সম্মূখে উপস্থিত হচ্ছে। পাশাপাশি বিশ্ব মুসলিমের হজ্ব কার্যক্রমও এ মাসেই। যদিও করোনার কারণে ইতিমধ্যে সৌদিআরবে বিশ্বের বাইরে থেকে হজ্বযাত্রীদের সেদেশে গমন বন্ধ ঘোষণা করেছে। মহান আল্লাহর দয়া ও রহমত ছাড়া এ মহামারী থেকে মুক্তি অস
বর্তমান প্রজন্ম: স্মার্টফোনের অপব্যবহার

বর্তমান প্রজন্ম: স্মার্টফোনের অপব্যবহার

মতামত
আশুক আহমদ; আধুনিক প্রযুক্তি দিন দিন মানুষের জীবনযাত্রা ডিজিটালাইজড করে সহজ এবং আরামদায়ক করে দিচ্ছে। বিশ্বায়নের যুগে সারা বিশ্ব যেমন গ্লোবাল ভিলেজ, মুঠোফোনের বদৌলতে বিশ্ব তেমনই এখন হাতের মুঠোয়। প্রযুক্তির উৎকর্ষতার ফলে মুঠোফোন আরও আধুনিক ও স্মার্ট চেহারা নিয়ে আমাদের মধ্যে স্মার্টফোন নামে আবির্ভূত হয়েছে। মুঠোয় নিয়ে চলার জন্য হাতে উঠেছে স্মার্ট চেহারার মুঠোফোন। এখন স্মার্টফোনে আমরা কী না করতে পারি? সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষায় ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটস অ্যাপ, ইমো, ভাইবার, জুম ইত্যাদি টাকা পয়সা লেনদেনে ডিজিটাল ব্যাংকিং সেবা থেকে শুরু করে, ব্যাকআপ বা তথ্য সংরক্ষণ, খেলাধুলা, টিভি, বিনোদন, চিঠিপত্র, কেনাকাটা, পরিবহন টিকেট, নিজের স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর, চলাফেরায় জিপিএস রোড ম্যাপ, বাজারের ফর্দ, ভর্তি, ক্লাস-রুটিন, এলার্ম ইত্যাদি সবকিছুই হচ্ছে স্মার্টফোনে। দৈনন্দিন জীবনের শত শত কাজ এই স্মার্
‘পাটশিল্প ধ্বংসের পাঁয়তারা রুখতে হবে’

‘পাটশিল্প ধ্বংসের পাঁয়তারা রুখতে হবে’

মতামত
মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম; হাটে-বাজারে মানুষ ‘ভালুকের খেলা’ দেখার জন্য ভিড় করে। মানুষের নজর তখন ভালুক-নাচের দিকে নিবদ্ধ থাকে। সেই সুযোগে ভিড়ে লুকিয়ে থাকা পকেটমার নির্বিঘেœ পাবলিকের পকেট কেটে নেয়। এমন ঘটনাই এখন ঘটছে দেশের সরকারি পাটকলগুলো নিয়ে। মানুষ এখন ‘করোনা বিপর্যয়ে’ দিশেহারা। এখন তাদের প্রধান নজর ‘করোনা’য় কেন্দ্রীভূত। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে গত ২ জুলাই সরকারি পাটকলগুলো বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে। দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলো বন্ধ করে দেওয়ার প্রাথমিক কাজগুলো শুরু হয়ে গেছে। ঘোষণার পর পরই পাটকলগুলোর গেটে-গেটে জলকামানসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। শ্রমিক নেতাদের ‘উঠিয়ে নেওয়া’ ও ‘আটক করা’ শুরু হয়েছে। সরকার পাটকল শ্রমিকসহ জনগণের বিরোধিতা ও সম্ভাব্য সংগ্রামকে ভয় পাচ্ছে। সে কারণেই সে এসব ব্যবস্থা নিচ্ছে। এতেই প্রমাণ হয়, পাটকল বন্ধের সরকারি ঘ
সরকারিকৃত কলেজ শিক্ষকদের মানবেতর জীবন যাপন, দায় কার? 

সরকারিকৃত কলেজ শিক্ষকদের মানবেতর জীবন যাপন, দায় কার? 

মতামত
মোহাম্মদ শামীম উদ্দিন; নীরবে ভিজে যায় চোখরে পাতা, কষ্টরে আঘাতে বেড়ে যায় বুকের ব্যথা, জানিনা এই ভাবে কাটাতে হবে কতদিন আমাদের এই জীবনে কি আসবে না সুখের দিন মি. “ক” ও “স” সাহেবরা কি সর্বদা থাকবে রঙিন! বলতে চেয়েও কিছু কিছু কথা আছে বলতে পারিনা যাচাই বাছাই নামে কালক্ষপেণ তাও সইতে পারিনা! চাই অতি দ্রুত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ শিক্ষকদের মনে আবারো ফিরে আসুক সুখের আবেগ। ৩০ জুন ২০১৬ সালের সন্ধ্যাটা ছিল খুবই আনন্দের। পরিবারের সকলের মুখে ছিল অফুরন্ত হাসি কেননা সবাইর ভিতর কাজ করছিল কলেজ সরকারিকরণের রেষ। আজ ৩০ জুন ২০২০, কলেজ সরকারিকরণের ৫ বছর পূর্তি। কলেজ সরকারিকরণ চলমান তবে আনন্দের বিন্দুমাত্র রেষ নেই কারোর মনে। আছে শুধু হতাশা আর উৎকন্ঠা। ঘটনা-১ঃ আমার পাশের কলেজ মাটিরাঙ্গা সরকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আমার বাবার বাল্যবন্ধু। তিনি ৩০ জুন ২০১৬ সালের সরকারিকরণের নিউজটা পেয়েছিলেন একদিন প
শিক্ষাবান্ধব সরকারের গলার কাঁটা শিক্ষা আমলা

শিক্ষাবান্ধব সরকারের গলার কাঁটা শিক্ষা আমলা

মতামত
 মোহাম্মদ আলী শামীম; শিক্ষা বিভাগের যুগোপযোগী উন্নয়নের জন্য প্রথমেই ধন্যবাদ জানাতে হয় বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে।স্বাধীনতার পূর্বে এদেশের মানুষ মানব সম্পদে রূপান্তরিত হবার জন্য তেমন কোন উন্নয়ন পশ্চিম পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠী কিংবা ব্রিটিশরা করেনি।যার প্রমান স্বাধীন বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্হাপনের ইতিহাস দেখলে সহজে অনুমান করা যায়। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের প্রায় স্হানে এবং এরপর দেশের সকল এলাকায় বেসরকারি ভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্হাপিত হয়।যার মূল উদ্দেশ্য হলো স্বাধীন বাংলাদেশের জানগণ শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়া।মানব সম্পদে গঁড়ে উঠা।স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা উন্নতির জন্য বঙ্গবন্ধুর হৃদয় দিয়ে কাজ করেছিলেন।পঁচাত্তরের ১৫ ই আগস্টের পর সেঠি তেমন বিস্তার ঘটেনি। তারপরও দেশ প্রেমিক জনতা ও ব্যক্তি উদ্দ্যোগে এলাকা,গ্রাম,মহল্লা,শহর, উপ শহর ও মহানগরের বিভিন্ন স্হানে, বেসরক
সাবেক স্পিকার হুমায়ূন রশীদের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকীতে জানাই শ্রদ্ধাঞ্জলি: শাহ মনসুর

সাবেক স্পিকার হুমায়ূন রশীদের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকীতে জানাই শ্রদ্ধাঞ্জলি: শাহ মনসুর

মতামত
শাহ মনসুর আলী নোমান ; আজ (১০ জুলাই)জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৪১তম অধিবেশনের সভাপতির দায়িত্ব পালনকারী, সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী, পররাষ্ট্র সচিব ও স্পিকার হুমায়ূন রশীদ চৌধুরীর ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী। হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী ২০০১ সালের ১০ জুলাই স্পিকারের দায়িত্ব পালনকালে ইন্তেকাল করেন। তিনি দেশের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) প্রতিষ্ঠা করে সিলেট সহ সারা বাংলাদেশে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষায় বিপ্লব সাধন করেন। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার স্পিকার হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীকে মরণোত্তর স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত করে। মরহুম হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী ছিলেন এক জন পেশাদার কূটনীতিবিদ। তিনি ১৯২৮ সালের ১১ নভেম্বর সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা আব্দুর রশীদ চৌধুরী এবং মাতা সিরাজুন্নেসা চৌধুরী। তারা দুই জনেই ছিলেন প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ।